SEND FEEDBACK

English
Bengali

কুক-টুক: সরস্বতী পুজোর স্পেশাল ৩টি রেসিপি

জানুয়ারি ৩১, ২০১৭
Share it on
সরস্বতী পুজোর দিন পশ্চিমবঙ্গীয়দের যেমন সব মেনুই নিরামিষ, পূর্ববঙ্গীয়দের কিন্তু এইদিন ইলিশ না হলে চলবেই না। দুই তরফের জন্যই রইল স্পেশাল কিছু রেসিপি।

বাংলায় মাঘী পঞ্চমীর সূত্র ধরেই তিনটি তিথি উদ্‌যাপনের চল রয়েছে। চতুর্থীতে শ্রীশ্রী গণেশ পুজো, পঞ্চমী মা সরস্বতীর আরাধনা আর তার পরের দিন শীতলষষ্ঠী। এই উপলক্ষে তিনটি বিশেষ রেসিপি শেয়ার করলাম আপনাদের সঙ্গে। এদিনের চলিত রান্না অর্থাৎ খিচুড়ি, লাবড়া তো খুবই কমন। তাই একটু অন্য রকম রেসিপি দিলাম এবার। সরস্বতী পুজোয় পূর্ববঙ্গের লোকেরা ইলিশ মাছের একটা বিশেষ ঝোল খেয়ে থাকে। শীতলষষ্ঠীর মেনু যেহেতু পশ্চিমবাংলার মানুষদের বিশেষত্ব তাই যাঁরা পূর্ববাংলার, তাঁদের জন্য ইলিশ মাছের ঝোলের একটি রেসিপি দিলাম। প্রচলিত আছে যে বিজয়া দশমীর দিন জোড়া ইলিশ খাওয়ার পরে আবার এই সরস্বতী পুজোর দিন থেকে ইলিশ মাছ খাওয়া শুরু হয়।    

ইলিশের ঝোল

উপকরণ: 

ইলিশ মাছ-- ৪ টুকরো
বেগুন-- ৪ টুকরো 
কুমড়ো-- ৪ টুকরো 
কাঁচালঙ্কা চেরা-- ৪-৫টা 
হলুদগুঁড়ো-- ২ চা-চামচ 
সর্ষেবাটা-- ১ টেবিল-চামচ 
নুন-- স্বাদমতো 
কালো জিরে-- ১/২ চা-চামচ 
সর্ষের তেল-- ১/২ কাপ 
কাঁচালঙ্কা-- ২ চা-চামচ 


প্রণালী: মাছ ধুয়ে তাতে নুন ও ১ চামচ হলুদ মাখিয়ে নিন। অল্প তেল রেখে দিয়ে বাকি তেল কড়াইতে ঢেলে দিন। তেল গরম হলে নুন ও হলুদ মাখানো মাছ হাল্কা করে ভেজে তুলে রাখুন। ওই তেলেই এবার কালো জিরে ফোড়ন দিন। ফোড়ন হয়ে গেলে বড় করে কাটা বেগুন ও কুমড়ো দিয়ে ভাল করে ভাজতে থাকুন। সবজি ভাজতে ভাজতেই তাতে নুন, বাকি হলুদগুঁড়ো, লঙ্কাগুঁড়ো, রাঁধুনি বাটা ও কাঁচালঙ্কা বাটা দিয়ে ভাল করে কষতে থাকুন। মশলা ও সবজি বেশ ভাল কষানো হলে ১ থেকে দেড় কাপ মতো জল দিন ও ঢাকা দিয়ে রান্না করুন। যখন দেখবেন যে সবজি সেদ্ধ হয়ে এসেছে তখন ঝোলের মধ্যে ভেজে রাখা মাছ কাঁচালঙ্কা ও সর্ষেবাটা দিয়ে দিন। আরও কিছুক্ষণ রান্না করুন। ঝোল ঘন হয়ে এলে এবং মাছ ও সবজি সেদ্ধ হয়ে গেলে বাঁচিয়ে রাখা কাঁচা তেল ছড়িয়ে নামিয়ে নিন। গরম ভাতের সঙ্গে দারুণ লাগে রাঁধুনি বাটা দিয়ে এই ইলিশ মাছের ঝোল। 

ফুলকপি ও সজনে ফুলের তরকারি 

উপকরণ: 

আলু-- ২টি (ডুমো করে কাটা)
ফুলকপি-- ১টি (মাঝারি, ছোট ছোট টুকরো করা)
কড়াইশুটি-- ১/২ কাপ (ছাড়ানো)
সজনে ফুল-- ২০০ গ্রাম 
কাঁচালঙ্কা-- ৪টি (চেরা)
সর্ষের তেল-- ৩ টেবিল-চামচ
গোটা জিরে-- ১ চা-চামচ
হলুদগুঁড়ো-- ১/২ চা-চামচ
লঙ্কাগুঁড়ো-- ১ চা-চামচ 
নুন-- স্বাদমতো
চিনি-- ১/২ চা-চামচ
আদাবাটা-- ১ চা-চামচ 

প্রণালী: সবজি ধুয়ে জল ঝরিয়ে রাখুন। সজনে ফুল ভাল করে বেছে ধুয়ে রাখুন। কড়াইতে তেল গরম করুন। তেল গরম হলে গোটা জিরে ফোড়ন দিন। ফোড়ন হয়ে গেলে ধুয়ে রাখা আলু ও ফুলকপি দিয়ে মাঝারি আঁচে ঢাকা দিয়ে ভাজুন। সবজি ভাজতে ভাজতে তাতে হলুদগুঁড়ো, লঙ্কাগুঁড়ো, আদাবাটা ও নুন-চিনি দিয়ে ঢাকা দিয়ে রান্না করুন। যখন দেখবেন সবজি হাল্কা ভাজা হয়েছে তখন মটরশুটি ও বেছে রাখা সজনে ফুল দিন। জলের ছিটে দিয়ে সবজি বেশ ভাজা ভাজা করুন। যখন দেখবেন সবজি সেদ্ধ হয়ে গিয়েছে তখন কাঁচালঙ্কা ও ১ টেবিল-চামচ কাঁচা তেল ছড়িয়ে নামিয়ে নিন। এই সবজিটিও শীতল ষষ্ঠীতে খায় আর তাই এই সবজি প্রায় জল ছাড়াই রান্না হয় কারণ জল দিলে সবজি তাড়াতাড়ি খারাপ হয়ে যায় আর শীতলষষ্ঠীতে সবাইকে বাসি খেতে হয়। সজনে ফুলকে অ্যান্টিপক্স বলা হয় তাই এই সময়ে অর্থাৎ বসন্তকালে সকলেরই একটু-আধটু সজনে ফুল খাওয়া উচিত। 

রাঙালু, বড়ি, বেগুন দিয়ে কুলের টক

উপকরণ: 

টোপা কুল-- ২০০ গ্রাম
রাঙালু-- ১টা (ডুমো করে কাটা)
বেগুন-- ১টা (ডুমো করে কাটা)
বড়ি-- ৮-১০টা 
শুকনো লঙ্কা-- ১টা 
পাঁচফোড়ন-- ১ চা-চামচ
নুন-- স্বাদমতো 
চিনি-- ১০০ গ্রাম 
হলুদগুঁড়ো-- ১/২ চা-চামচ 
লঙ্কাগুঁড়ো-- ১/২ চা-চামচ
সর্ষের তেল-- ৪ টেবিল-চামচ 

প্রণালী: কেটে রাখা সবজি ধুয়ে রাখুন। কুল ফাটিয়ে নিন। এইবার কড়াইতে তেল দিন। তেল গরম হলে তাতে পাঁচফোড়ন ও শুকনো লঙ্কা দিন। ফোড়ন হয়ে গেলে রাঙালু ও বেগুন দিয়ে হাল্কা আঁচে ভাজতে থাকুন। বড়ি আগে থেকে ভেজে সরিয়ে রাখুন। সবজি ভাজা হলে তাতে লঙ্কাগুঁড়ো, হলুদগুঁড়ো ও নুন দিন ও আরও কিছুক্ষণ ভাজুন। এইবার জল দিন। জল ফুটে উঠলে কুল ও বড়িভাজা দিয়ে দিন। যখন দেখবেন সবজি সেদ্ধ হয়ে গিয়েছে ও জলটাও শুকিয়ে এসেছে তখন চিনি দিয়ে দিন। চিনির পাক ধরলে ও বেশ গাঢ় হয়ে এলে কুলের টক আঁচ থেকে নামিয়ে নিন। এই টক খেতে খুবই ভাল লাগে এবং সরস্বতী পুজো ও শীতল ষষ্ঠীতে এই টক খাবার বেশ প্রচলন আছে। 

Cook Took Rukma Dakshy Saraswati Puja Recipe Blog
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -