SEND FEEDBACK

English
Bengali

আধার নম্বর দিয়ে মোবাইল সিম নিচ্ছেন? জানেন, কত বড় সর্বনাশ হয়ে গিয়েছে আপনার?

নিজস্ব প্রতিবেদন, এবেলা.ইন | ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৭
Share it on
আধার নম্বরের বিনিময়ে জিও সিম দেওয়া হচ্ছে এখন। কিন্তু, এর জন্য সাধারণ মানুষের যা ক্ষতি হচ্ছে, তা এখন টের পাওয়া যাচ্ছে না। যখন বুঝবেন, তখন আর কিছুই করার থাকবে না।

দেশে বসবাসকারীদের সম্পর্কে পুঙ্খনাপুঙ্খ তথ্য রাখতে আধার কার্ড নামক ভাবনার আমদানি করেছিল ইউপিএ সরকার। কিন্তু, শুরু থেকেই এই আধার প্রকল্প নিয়ে বিতর্ক হয়েছে। খোদ বিজেপি এর বিরোধিতা করে রাস্তায় নেমেছিল। কিন্তু, ক্ষমতায় আসার পরে সেই বিজেপি-ই সমস্ত কিছুতে আধার নম্বর বাধ্যতামূলক করেছে। সেইসঙ্গে আধার কার্ড তৈরিতেও গতি এনেছে।

 
এমনকী, সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার এক নির্দেশিকায় জানিয়ে দিয়েছে আধার নম্বর ছাড়া কাউকে মোবাইল সিম দেওয়া হবে না। যদিও, এই নির্দেশিকার অনেক আগে থেকেই জিও আধার নম্বর নিয়ে সিম দিচ্ছে। সম্প্রতি ভোডাফোন, এয়ারটেল, আইডিয়া-র মতো সংস্থাগুলোও সিম দিতে আধার নম্বর বাধ্যতামূলক করেছে।  

আধারকার্ডের বিনিময়ে জিও-ই প্রথম মোবাইল সিম দিতে শুরু করেছিল। তাদের দাবি ছিল, এতে খুব সহজেই একজন গ্রাহকের সম্পর্কে সঠিক তথ্য পাওয়া যায়। কিন্তু, এভাবে আধার নম্বর দিতে বাধ্য হওয়ায় একজনের সমস্ত গোপন তথ্য ফাঁস হয়ে যাচ্ছে বলে কেরল হাইকোর্টে মামলা করেন কেরল প্রদেশ কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক সুনীল টিজি। তিনি অভিযোগ করেন, আধার কার্ডের পরিচালনকারী সংস্থা ইউআইডিএআই এই নিয়ে নিয়ম শিথিল করায় সাধারণ মানুষের একান্ত গোপন তথ্য সর্বজনীন হয়ে যাচ্ছে। সেইসঙ্গে তিনি অভিযোগ করেন যে কেন্দ্রীয় সরকারে এই সিদ্ধান্তে জিও-র হাতে সাধারণ মানুষদের গোপন তথ্য পাচার হয়ে যাচ্ছে। এর মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সরকার নিজেই আধার আইন-এ গোপনীয়তা রক্ষায় বলা নিয়মাবলিকে লঙ্ঘন করেছে বলেও সুনীল তাঁর করা রিট পিটিসনে অভিযোগ করেছেন।

আরও পড়ুন... 

শুরু হয়েছে জিও গ্রাহকদের বিল তৈরি। কীভাবে চেক করবেন নিজের বিল? 

বাহ! ফের এক বছরের জন্য ফ্রি জিও! গল্পটা ঠিক কী?

সুনীলের করা এই অভিযোগের ভিত্তিতেই কংগ্রেসের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে এই আধার নম্বর বাধ্যতামূলক করার চক্করে আসলে সাধারণ মানুষের সমস্ত গোপন তথ্য বেসরকারি সংস্থাগুলোর হাতে চলে যাচ্ছে। যেমন, একজন আধার নম্বরধারীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের তথ্য থেকে শুরু করে প্যানকার্ড নম্বর, পরিবারের সদস্য সংখ্যা, সম্পত্তির হিসাব, রেটিনা ইমপ্রেসন, থাম্ব ইমপ্রেসেনের মতো তথ্য বেসরকারি সংস্থার হাতে পাচার হয়ে যাচ্ছে। এমনকী, আধার নম্বরধারী কোন খাতে সরকারের থেকে কত করে ভর্তুকি পাচ্ছেন, সে তথ্যও চলে যাচ্ছে।

 সুনীল তাঁর আবেদনে ক্যাবিনেট সেক্রেটারিকে শোকজের দাবিও তুলেছেন এবং সেইসঙ্গে আধার ও তার সংশ্লিষ্ট সমস্ত দফতরকে আদালতে জবাবদিহির দিতে হবে বলেও জানিয়েছেন। জিও-কে কীভাবে আধার নম্বর অথেনটিকেশনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন সুনীল। তাঁর অভিযোগ, সরকারের জন্য আজ জিও-র হাতে চলে গিয়েছে মানুষের সমস্ত গোপন তথ্য। তবে এই মুহূর্তে শুধু জিও নয়, অন্য সংস্থাগুলোও আধার নম্বরের বিনিময়ে মোবাইল সিম দিচ্ছে। সমস্ত বিষয়টিতেই কেন্দ্রকে নোটিস পাঠিয়েছে কেরল হাইকোর্ট।

JIO Reliance Adhar Mobile 4G
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -