SEND FEEDBACK

English
Bengali

বিদেশ গিয়েছিলেন চাকরি করতে। এক রাতে ঘটল এমন কিছু যে, দম্পতি হলেন কোটিপতি

নিজস্ব প্রতিবেদন, এবেলা.ইন | মার্চ ৭, ২০১৭
Share it on
শ্রীরাজ জন্মগত ভাবে কেরলের বাসিন্দা। ন’ বছর আগে কর্মসূত্রে তিনি পাড়ি দেন আবু ধাবি। কিন্তু তখনও তিনি জানেন না যে, নিয়তি তাঁর জন্য কী স্থির করে রেখেছে।

ভাগ্য যে কার জন্য কখন কোন উপহার নিজের ভাণ্ডারে সঞ্চিত করে রাখে, তা এক রহস্য। কথাটা যেন নতুন করে প্রমাণিত হল শ্রীরাজ কৃষ্ণানের জীবনে। সম্প্রতি ভাগ্যের বদান্যতায় রাতারাতি তিনি হয়ে গিয়েছেন কোটিপতি। 

শ্রীরাজ জন্মগত ভাবে কেরলের বাসিন্দা। ন’ বছর আগে কর্মসূত্রে তিনি পাড়ি দেন আবু ধাবি। সেখানে একটি শিপিং কোম্পানিতে কাজ করতেন। স্ত্রীকে নিয়ে সেখানেই সংসার পেতেছিলেন। যা মাইনে পেতেন, তাতে সচ্ছল ভাবেই চলে যেত সংসার। কিন্তু আর্থিক উন্নতির স্বপ্ন কে না দেখে। শ্রীরাজ তাই নিয়মিত লটারির টিকিট কিনতেন। কিন্তু কোনও দিনই ভাগ্য প্রসন্ন হয়নি তাঁর প্রতি। একটা কানাকড়িও কোনও দিন লটারি থেকে যেতেননি শ্রীরাজ। হতাশ শ্রীরাজ তাই দিন সাতেক আগে লটারির একটি টিকিট কেনার সময়ে মনে মনে সিদ্ধান্ত নেন, এই শেষ, আর কোনও দিন লটারির পেছনে গাঁটের কড়ি খরচ করবেন না। কিন্তু তখনও তিনি জানেন না যে, নিয়তি তাঁর জন্য কী স্থির করে রেখেছে। 

আরও পড়ুন

বউয়ের একটা আইডিয়া বদলে দিল দম্পতির ভাগ্য। দু’জনে হলেন কোটিপতি

সৌভাগ্যবান সেই স্বামী, যাঁর স্ত্রীর আছে এই ৪টি গুণ

পরের দিন অর্থাৎ গত ৫ মার্চ সকাল সকাল শ্রীরাজের মোবাইলে কল আসে। আবু ধাবির বিখ্যাত লটারি সংস্থা ‘বিগ টিকিট ড্র’ কর্তৃপক্ষের তরফে ফোন করে শ্রীরাজকে জানানো হয়, তাঁর কাটা টিকিট নম্বর ৪৪৬৯৮ লটারিতে প্রথম পুরস্কার জিতেছে। জানানো হয়, প্রথম পুরস্কার হিসেবে ভারতীয় মুদ্রায় ১২.৭১ কোটি টাকা পেতে চলেছেন শ্রীরাজ।

শ্রীরাজ এবং তাঁর স্ত্রী এখন সুখের সাগরে ভাসছেন। স্থানীয় সংবাদপত্র ‘খালিজ টাইমস’-কে তিনি জানিয়েছেন, ‘যখন হতাশাগ্রস্ত হয়ে লটারির টিকিট কাটা বন্ধ করে দেব বলে ভেবেছিলাম, তখনই অবিশ্বাস্য ঘটনাটা ঘটল।’ ভাগ্য যে সত্যিই কখন কী ঘটাবে, তা কেউ জানে না।

Sriram Krishnan Abudhabi
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -