SEND FEEDBACK

English
Bengali

‘১৫ তারিখ থেকে বন্ধ হচ্ছে পেটিএম ই-ওয়ালেট!’ কী বলছে সংস্থা?

নিজস্ব প্রতিবেদন, এবেলা.ইন | জানুয়ারি ১২, ২০১৭
Share it on
সাবধান! আর ২ দিন পরেই নাকি বন্ধ হয়ে যাবে পেটিএম ই-ওয়ালেট। চরম আতঙ্কে রয়েছেন গ্রাহকরা। এই পরিস্থিতিতে ঠিক কী জানাল সংস্থা?

হাতে আর মাত্র দু’টো দিন। এরপর ১৫ তারিখ সকালেই বন্ধ হয়ে যেতে পারে দেশের মধ্যে অন্যতম সেরা ই-ওয়ালেট সংস্থা পেটিএম। তাই তার আগে পেটিএম ওয়ালেটের সমস্ত টাকা হয় ব্যবহার করে নিন, নয়তো ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে সেই টাকা ট্রান্সফার করে নিন। কেননা ১৫ জানুয়ারি থেকে পেটিএম-এ সমস্ত লেনদেন বন্ধ হয়ে যাবে। বেশ কিছুদিন এমনই একটি ম্যাসেজ ঘোরাফেরা করছে হোয়াটস অ্যাপ জুড়ে। সেই সঙ্গে পেটিএম-এর লোগো দেওয়া একটি পাবলিক নোটিসও। সেই নোটিস-এ বলা হয়েছে, যেহেতু ১৫ জানুয়ারির পর পেটিএম ব্যাঙ্কে পরিণত হয়েছে, সেহেতু পেটিএম ওয়ালেট থেকে আর টাকা তোলা যাবে না। এই ম্যাসেজ-এর জেরে চরম বিপত্তিতে পড়েছেন দেশের পেটিএম ব্যবহারকারীরা।

চিন্তার কোনও কারণ নেই। কেন না সম্প্রতি পেটিএম-এর তরফে জানানো হয়েছে এই ম্যাসেজটি ভুয়ো। ১৫ জানুয়ারি পেটিএম, ই-ওয়ালেট থেকে ব্যাঙ্ক হয়ে গেলেও কোনও অসুবিধা হবে না পেটিএম ব্যবহারকারীদের।

আরও পড়ুন

পেটিএম ব্যবহারের পদ্ধতি কী? কতটা নিরাপদ ই-ওয়ালেট? মোদীর দাবি কি ঠিক?

যে ৩টি কারণে পেটিএম, ফ্রিচার্জের মতো ই-ওয়ালেট ব্যবহার আপনার উচিৎ নয়

মোদীর নোটবাতিল ঘোষণার পরই পেটিএম পেমেন্টস ব্যাঙ্কের জন্য আরবিআই-এর কাছে আবেদন জানায়। কিছুদিন আগেই সেই আবেদন মঞ্জুর করে পেটিএম-কে পেমেন্টস ব্যাঙ্কের লাইসেন্স দেয় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া। এরপরেই জল্পনা শুরু হয়ে যায় যে তাহলে ই-ওয়ালেট গ্রাহকদের টাকার কী হবে? সেই সময়ই হোয়াটস অ্যাপ জুড়ে এই ম্যাসেজে মাথায় হাত পড়ে বহু গ্রাহকের।

বুধবার সংস্থার তরফে একটি বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়, পেটিএম ই-ওয়ালেট থেকে পেমেন্টস ব্যাঙ্কে রূপান্তরিত হচ্ছে। তার মানে এই নয় যে পেটিএম-এর ই-ওয়ালেট পরিষেবা বন্ধ হয়ে যাবে! ব্যবহারকারীদের কোনওরকম অসুবিধা হবে না। বরং পেমেন্টস ব্যাঙ্ক চালু হলে আরও সুরক্ষিত থাকবে ব্যবহারকারীদের টাকা। প্রয়োজনে তাঁরা টাকা তুলে নিতে পারবেন, আবার টাকা অন্য জায়গায় ট্রান্সফারও করা যাবে।

পেটিএএম-এর এই বিবৃতিতে আপাতত স্বস্তিতে ব্যবহারকারীরা।

Paytm wallet bank digital payment
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -