SEND FEEDBACK

English
Bengali

‘আমির খান ইনফেকশাস’! কেন এমন কথা বললেন ‘দঙ্গল’-এর এই নায়িকা?

নিজস্ব প্রতিবেদন, এবেলা.ইন | জানুয়ারি ১২, ২০১৭
Share it on
সাক্ষী তনওয়ার ভারতীয় টেলিভিশনের এক জনপ্রিয় নাম। টেলিসিরিয়াল থেকে হরেক কিসিমের বিজ্ঞাপনে প্রচণ্ডভাবে পরিচিত মুখ তিনি। সম্প্রতি আমির খানের ‘দঙ্গল’ ছবিতেও তাঁকে দেখা গিয়েছে আমিরের স্ত্রীর ভূমিকায়।

‘দঙ্গল’ ছবিতে তাঁর অভিনয় বিশাল প্রশংসা পেয়েছে। সাক্ষী তনওয়ার যে ভাল অভিনেত্রী এটা বহুদিন আগেই প্রমাণ হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু, তারপরও সেভাবে বড় পর্দায় তাঁকে দেখা যায়নি। বরং ছোটপর্দাতেই মনোনিবেশ করেছিলেন তিনি। ছোটপর্দায় তাঁর সমসাময়িক রাম কপূর থেকে শুরু করে বহু অভিনেতা-অভিনেত্রী পরবর্তীকালে বড় পর্দায় অভিনয় করেছেন। কিন্তু সাক্ষীকে সেভাবে দেখতে পাওয়া যায়নি। 

আমির খান ও সাক্ষী তানোয়ার

সেইদিক দিয়ে দেখলে ‘দঙ্গল’-এর অভিনয়ের অফার তাঁর কাছে যেন ছিল একটা মাস্টারপিসের অংশীদার হয়ে ওঠার সুযোগ। এবার আর হাতছাড়া করেননি সাক্ষী। কারণ, চরিত্রটা ছিল আমিরের বিপরীতে, তাঁর স্ত্রীর ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন সাক্ষী। সাক্ষী জানিয়েছেন, ‘দঙ্গল’-এর মূল চরিত্রগুলির মধ্যে তাঁর চরিত্রেই সবার শেষে অভিনেত্রীর নাম ঘোষণা হয়েছিল। ফলে, অন্য চরিত্রের অভিনেতারা ‘দঙ্গল’-এর ওয়ার্কশপে অংশগ্রহণে যতটা সুযোগ পেয়েছিলেন সাক্ষী সেই সময়টা পাননি। বিশেষ করে হরিয়ানভি ভাষায় কথা বলার প্রশিক্ষণ সবাইকে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু, সাক্ষী এই প্রশিক্ষণে যথেষ্ট সময় পাননি। তবে, হরিয়ানা ও রাজস্থানের সীমানায় থাকা আলওয়ারের বাসিন্দা হওয়ায় হরিয়ানভি ভাষা তুলে ফেলেছিলেন সাক্ষী। 

‘দঙ্গল’-এর শ্যুটিং হওয়ার আগে সাক্ষীর ধারণা ছিল আমির খান তাঁদের সঙ্গে সেভাবে হয়তো মিশবেন না এবং নিজের চরিত্রের মধ্যেই শুধু ডুবে থাকবেন। কিন্তু, বাস্তবে তেমন অভিজ্ঞতা হয়নি সাক্ষীর। তিনি জানিয়েছেন, শ্যুটিং-এর ফ্লোরে আমির সবসময়ে ছিলেন এক প্রাণোচ্ছ্বল শিশুর মতো। প্রতিটা মুহূর্ত সহঅভিনেতা-অভিনেত্রীদের সঙ্গে শেয়ার করতেন। কারোর কিছু বুঝতে অসুবিধা হলে দেখিয়ে দিতেন। ঠাট্টা আর ইয়ার্কিতে সকলের সঙ্গেই সম্পর্কটা আপন করে নিয়েছিলেন। ফলে, ‘দঙ্গল’-এ মহাবীর ফোগাটের স্ত্রী ‘দয়া ফোগাট’-এর চরিত্রের অভিনয়ে যথেষ্ট সাবলীল ছিলেন। 

আরও পড়ুন... 

আমিরের পাশে দাঁড়ানো এই মানুষটিই ‘দঙ্গল’ দেখে এখন রাগে কাঁপছেন! 

‘দঙ্গল’ দেখে অভিভূত? এই তথ্য জানার পরে লজ্জায় মাথা হেঁট হয়ে যাবে

তবে, আমির খানের খুঁতখুঁতানি প্রবলভাবে তাঁকে অবাক করেছে বলেই জানিয়েছেন সাক্ষী তনওয়ার। আসলে আমির কাজ নিয়ে এতটাই আবেগপ্রবণ যে শ্যুটিং-এর সময় তাঁর দৃশ্য থাকুক বা না থাকুক তিনি সেখানে হাজির থাকবেন। আমিরের এই আচরণ ‘প্রচণ্ডভাবে ইনফেকশাস’ বলে জানান সাক্ষী তনওয়ার। শ্যুটিং-এর সময় আমিরের এই আচরণ মাঝেমধ্যেই তাঁদের বিপদে ফেলত। তবে, আমির খানের মতো একজন গ্রেট অ্যাক্টরের সঙ্গে কাজ করার সুযোগটা জীবনের একটা বড় স্মৃতি বলেই মানছেন সাক্ষী।

Aamir Khan Sakshi Tanwar Dangal
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -