SEND FEEDBACK

English
Bengali

‘টিয়ারাই আমাকে খাঁচাবন্দি করেছে’, বললেন দেশের পাখি-মানব

নিজস্ব প্রতিবেদন, এবেলা.ইন | মার্চ ২০, ২০১৭
Share it on
একই সঙ্গে এক বিশাল পরিবর্তন ঘটে যায় চেন্নাইয়ের বাসিন্দা শেখরের জীবনেও। পেশায় তিনি ক্যামেরা সারান। কিন্ত, বর্তমানে তাঁকে সারা দেশ চেনে ‘বার্ডম্যান’ নামে।

২০০৪ সালের সুনামি। দক্ষিণ ভারতের উপকূলবর্তী এলাকার মানুষের জীবন ছারখার করে দেয় প্রাকৃতিক এই দুর্যোগ।

একই সঙ্গে এক বিশাল পরিবর্তন ঘটে যায় চেন্নাইয়ের বাসিন্দা শেখরের জীবনেও। পেশায় তিনি  ক্যামেরা সারান। কিন্ত, বর্তমানে তাঁকে সারা দেশ চেনে ‘বার্ডম্যান’ নামে। 

‘পাখি-মানুষ’। শুনতে মজার হলেও, নাম-কাহিনি যে কোনও মানুষকে উদ্বুদ্ধ করতে বাধ্য।

শেখরের কথায়, সুনামির কয়েক দিন পরে হঠাতই একদিন দু’টি টিয়া পাখি আসে তাঁর ছাদে। তাদের খেতেও দেন শেখর। পরের দিন আরও দু’জন সঙ্গী নিয়ে আসে তারা। শেখর হতাশ করেনি তাদেরকেও। এ ভাবেই টিয়ার সংখ্যা বাড়তে থাকে। বর্তমানে শেখরের অতিথি সংখ্যা প্রায় ৪০০০। 

আরও পড়ুন... 

ঘুরে আসতেই পারেন বক্সা, কিন্তু সেই পাখিদের দেখা মিলবে কী! দেখুন ভিডিও 

শিকারী যখন শিকার! ধনেশের ঠোকরে পালিয়ে বাঁচলেন পাখি শিকারী

প্রতিদিন ভোর চারটের সময় উঠে ‘সবুজ’ অতিথিদের খাবার তৈরি করেন শেখর। রোজ দু’বেলাই তারা আসে। নিশ্চিন্তে গ্রহণ করে ক্যামেরা রিপেয়ারম্যানের আতিথেয়তা।

টেলিভিশনের এক চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে শেখর জানিয়েছেন যে, সুনামির পর থেকে তাঁর শহর ছেড়ে তিনি কখনও কোথাও যাননি। কারণ পাখিগুলো অভুক্ত থেকে যাবে। শঙ্কা প্রকাশ করেছেন তিনি। কারণ, তাঁর হাঁটুর ব্যথার কারণে ছাদে উঠে টিয়াদের খেতে দিতে বর্তমানে তাঁর বেশ কষ্ট হয়। 

শেখর জানিয়েছেন, তাঁর আয়ের প্রায় ৪০% তিনি ব্যয় করেন তাঁর সবুজ অতিথিদের জন্য। সমাজের কাছে তাঁর বার্তা এটাই যে, সকল প্রাণীরই বাঁচার অধিকার রয়েছে। এবং এ দায়িত্ব মানুষেরই যে, তারা প্রাণীজগতকে বাঁচিয়ে রাখার চেষ্টা করুক।

Birdman Sekar Chennai Parakeet Tsunami
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -