SEND FEEDBACK

English
Bengali

মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ার নয়, জয়ললিতার প্রিয় বান্ধবীকে কোথায় পাঠালো সুপ্রিম কোর্ট?

নিজস্ব প্রতিবেদন, এবেলা.ইন | ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৭
Share it on
স্বপ্ন দেখেছিলেন পিছনের দরজা দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার। জোগাড় করেছিলেন বিধায়কদের সমর্থন। কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট সব স্বপ্ন ভেঙে দিল।

আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিহীন সম্পত্তির মামলায় ৪ বছরের কারাদণ্ড হল তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী শশিকলার। মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি অমিতাভ রায় ও বিচারপতি পিনাকীচন্দ্র ঘোষের ডিভিশন বেঞ্চ এই রায় দেন। 

জয়ললিতার মৃত্যুর পরে তাঁর জায়গায় মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন জয়া ঘনিষ্ঠ মন্ত্রী ও পনীরসেলভম। কিন্তু মাস খানেকের মধ্যেই প্রথমে এআইএডিএমকে-এর সাধারণ সম্পাদক হন জয়ার ছায়াসঙ্গী শশিকলা। তার পরেই নির্বাচিত বিধায়ক না সত্বেও এবং কোনও প্রশাসনিক অভিজ্ঞতাহীন শশিকলা মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার চেষ্টা করেন। অভিযোগ ওঠে শশিকলার চাপেই মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা দিতে বাধ্য হন পনীরসেলভম।

আরও পড়ুন:—

বিধায়করা রিসোর্টে বন্দি। পাঁচ দিন ধরে কেমন লড়াই চলছে নেতা-নেত্রীর?

জয়ললিতা কেন বিয়ে করলেন না? জেনে নিন ৫টি কারণ

এরই মাঝে শতাধিক বিধায়ককে নিজের শিবিরে টেনে একটি রিসর্টে বন্দি করে রাখেন শশিকলা। রাজ্যপাল অবশ্য তাঁকে মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ গ্রহণ করাননি। 

ইতিমধ্যে সুপ্রিম কোর্টের রায়ে শশিকলার আগামী ১০ বছরের মধ্যে মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পথ বন্ধ হয়ে গেল। কারণ ৪ বছরের কারাদণ্ডের পরে ৬ বছর তিনি কোনও নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবেন না।

তামিলনাড়ু রাজনীতিতে বড় মোড় এল এই রায়ের ফলে। এখন দেখার, রাজ্যপাল পনীরসেলভমকে মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিতে ডাকেন, নাকি শশিকলা অন্য কোনও চাল চালেন। 

Supreme Court AIDMK Sasikala Paneerselvam DA Case
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -