SEND FEEDBACK

English
Bengali

স্বেচ্ছায় নয়। নেতৃত্ব থেকে অবসর নিতে ধোনিকে বাধ্য করা হয়েছিল?

নিজস্ব প্রতিবেদন, এবেলা.ইন | জানুয়ারি ৯, ২০১৭
Share it on
নেতৃত্ব ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছিল এমএসডি’কে! কেন অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাঁড়াতে হল মাহিকে? অন্তর্তদন্তে উঠে আসছে চাঞ্চল্যকর তথ্য।

গত সপ্তাহেই নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। বুধবার ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে শেষবার প্রস্তুতি ম্যাচে অধিনায়ক হিসাবে নামছেন তিনি। তবে সূত্রের খবর, ধোনিকে নেতৃত্ব থেকে অকাল অবসর নিতে কার্যত বাধ্য করা হয়েছিল। বোর্ডের এক প্রভাবশালী কর্তা এদিন সকালেই জানান, এমএস এত তাড়াতাড়ি মোটেই সরে দাঁড়াতে রাজি ছিল না। তবে ধোনিকে এই বিষয়ে বোঝান নির্বাচক কমিটির চেয়ারম্যান এমএস প্রসাদ। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওয়ান ডে ও টি২০ সিরিজে নামার আগে ধোনিকে দেখা গিয়েছিল তার রাজ্য ঝাড়খণ্ডের মেন্টরের ভূমিকায়। গুজরাটের বিরুদ্ধে ঝাড়খণ্ড সেমিফাইনাল ম্যাচ ছিল নাগপুরে। সেখানেই ঈশান কিষাণদের সঙ্গে মেন্টর হিসাবে ছিলেন মাহি। নির্বাচক প্রধান প্রসাদও হাজির ছিলেন।

সেখানেই ধোনিকে প্রসাদ বোঝান, এখনই অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর সঠিক সময়। পরের ওয়ান ডে বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে ধোনির উচিত কোহলিকে দল গুছিয়ে নেওয়ার জন্য সময় দেওয়া। পরের বিশ্বকাপের সময় ধোনির বয়স দাঁড়াবে ৩৯-এর কাছাকাছি। সেকথা বুঝেই ধোনি প্রসাদের যুক্তি মেনে নেন বলে জানান বোর্ডের সংশ্লিষ্ট কর্তা।

নির্বাচক প্রধান এমএসকে প্রসাদের সঙ্গে ধোনি

গত দু’সপ্তাহ ধরে ধোনি-পর্ব চললেও, পুরো বিষয়টার সলতে পাকানোর কাজ শুরু হয়েছিল অবশ্য গতবছর সেপ্টেম্বর মাস নাগাদ, যে সময় নতুন নির্বাচকদের প্যানেল গড়া হয়েছিল। দায়িত্ব নেওয়ার পরেই এমএস প্রসাদের প্রথম কাজ ছিল ২০১৯ বিশ্বকাপের জন্য এখন থেকেই প্রস্তুতি শুরু করা। সেজন্য কোহলিকে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে যত দ্রুত সম্ভব দায়িত্বে আনতে চাইছিলেন। তাছাড়া শেষ দু’বছর টেস্টে কোহলির টিম ইন্ডিয়া যতটাই ভাল পারফরম্যান্স করছিল, ততটাই হতশ্রী পারফরম্যান্স ছিল সীমিত ওভারের ক্রিকেটে ধোনির মেন ইন ব্লু’দের। ললাট লিখন পড়তে পেরেই ‘ক্যাপ্টেন’ মাহির প্রস্থান।

আরও পড়ুন... 

কোহলির সঙ্গে ধোনি যা করেছিলেন, তা কেউ জানতেন না। ফাঁস করলেন বিরাট 

অধিনায়কত্ব ছাড়ার পরে ধোনিকে অভিনব কায়দায় সম্মান জানাল বোর্ড

Mahendra Singh Dhoni Team India MSK Prasad Virat Kohli
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -