SEND FEEDBACK

English
Bengali

মহা সন্ধিক্ষণে রাজ্য রাজনীতি, বদলে যেতে পারে তৃণমূলের ভবিষ্যৎ

পিনাকপাণি ঘোষ, এবেলা.ইন | মার্চ ১৯, ২০১৭
Share it on
প্রাথমিক তদন্তের শেষে কী বলবে সিবিআই? যাই বলুক তাতে বদলে যাবে রাজ্য রাজনীতির ভবিষ্যৎ। বদলে যাবে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসর আগামী।

ক’দিন আগেও তৃণমূল কংগ্রেস তাকিয়ে ছিল উত্তরপ্রদেশ নির্বাচনের ফলাফলের দিকে। এখন তাকিয়ে রয়েছে নিজাম প্যালেসের দিকে। সপ্তাহের শুরুতে আদালতকে কী বলবে সিবিআই? যাই বলুক তাতে বদলে যাবে রাজ্য রাজনীতির ভবিষ্যৎ। বদলে যাবে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের আগামী।

শুক্রবার সিবিআইয়ের হাতে নারদকাণ্ডের তদন্তের দায়িত্ব দিয়ে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে প্রাথমিক রিপোর্ট জমা দিতে বলেছে কলকাতা হাইকোর্ট। শনিবার থেকেই জোর কদমে তদন্তের কাজ শুরু করে দিয়েছে সিবিআই। অন্য দিকে, সূত্রের খবর রাজনৈতিক ও আইনি লড়াইয়ের প্রস্তুতিও জোর কদমে চালাচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস।

নারদকাণ্ডের তদন্তে আদৌ কেন্দ্রীয় সরকার নাক গলাবে কিনা, সুপ্রিম কোর্টে স্থগিতাদেশ মিলবে কিনা সেই জল্পনা বাদ দিলে দু’টি মাত্র সম্ভাবনা রয়েছে। এক— সিবিআই বলবে, এই নারদকাণ্ড ‘আদালতগ্রাহ্য অপরাধ।’ দুই— এই মামলা ‘আদালতগ্রাহ্য অপরাধ নয়।’ প্রথমটি হলে তৃণমূল কংগ্রেসের এক ডজন নেতার বিরুদ্ধে হবে এফাআইআর। অন্যটায় মিলবে আপাতত স্বস্তি। কিন্তু দু’টি ক্ষেত্রেই বদলে যাবে রাজ্য রাজনীতি। 

দেখে নিন দুই সম্ভবনা—

সিবিআই যদি ‘আদালাতগ্রাহ্য অপরাধ’ বলে।

তৃণমূল কংগ্রেস— সংকটে পড়বে তৃণমূল কংগ্রেস। একই সঙ্গে নরেন্দ্র মোদী তথা কেন্দ্রের বিরুদ্ধে প্রতিহিংসার রাজনীতির অভিযোগ তুলে রাজ্য জুড়ে আন্দোলনে নামবে।

বিজেপি— অনেকটাই উৎফুল্ল হবেন রাজ্য বিজেপির নেতারা। হাতি কাদায় পড়েছে দেখার আনন্দের পাশাপাশি কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব যে তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে বোঝাপড়া করেনি সেটাও আনন্দ দেবে। কিন্তু সেটা কাজে লাগাতে পারবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে।

বাম-কংগ্রেস— বিজেপির মতোই তৃণমূল কংগ্রেসের নিন্দা করার সুযোগ ও আনন্দ পাবে। মোদী-দিদি বোঝাপড়ার স্লোগান আওড়ানো যাবে না।

সিবিআই যদি ‘আদালতগ্রাহ্য অপরাধ নয়’ বলে।

তৃণমূল কংগ্রেস— আপাতত স্বস্তি মিলবে। বিজেপি বিরোধিতা কমাতে হবে। বিশেষ করে নরেন্দ্র মোদী সম্পর্কে তোপ দাগা বন্ধ করতে হবে। একই সঙ্গে সহ্য করতে হবে বিজেপির সঙ্গে বোঝাপড়ার অভিযোগ। যেটা ইতিমধ্যেই মণিপুরে সরকার গঠন নিয়ে শুনতে হচ্ছে।

বিজেপি— মুষড়ে পরবেন রাজ্য বিজেপির নেতারা। তৃণমূলকে সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগ শুনতেই হবে।

বাম-কংগ্রেস— রাজ্য রাজনীতিতে ঘুরে দাঁড়ানোর সব থেকে বড় সুযো‌গ পাবে বঙ্গের দুই প্রধান বিরোধী শক্তি। বিজেপি ও তৃণমূল কংগ্রেসকে এক ব্যাকেটে ঢুকিয়ে প্রচারের বড় সুযোগ এসে যাবে। তবে সেটা কাজে লাগাতে পারবে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাবে।

Narada CBI TMC BJP
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -