SEND FEEDBACK

English
Bengali

গোলাপ কাননে সিবিআই

দেবাশিস ঘড়াই | মার্চ ১৯, ২০১৭
Share it on
সারদা কেলেঙ্কারি নিয়ে ‘অস্বস্তি’ আগেই ছিল। এবার রোজভ্যালি-কাণ্ডেও কলকাতা পুরসভায় ‘হানা’ দিল সিবিআই।

সারদা কেলেঙ্কারি নিয়ে ‘অস্বস্তি’ আগেই ছিল। এবার রোজভ্যালি-কাণ্ডেও কলকাতা পুরসভায় ‘হানা’ দিল সিবিআই।
সিবিআই সূত্রের খবর, বেশ কয়েকদিন আগে রোজভ্যালি সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহের জন্য কেন্দ্রীয় পুরভবনে এসে খোঁজখবর করেন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার কয়েকজন আধিকারিক। শহরে রোজভ্যালি সংস্থার কোন কোন অফিস রয়েছে, কোন কোন শাখার নামে ট্রেড লাইসেন্স রয়েছে, সে সম্পর্কে বিশদে তথ্যসংগ্রহ করেন তাঁরা। বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থার ব্যবসা সংক্রান্ত আরও কোনও তথ্য পুর ভাণ্ডারে রয়েছে কি না, সে সম্পর্কেও তাঁরা খোঁজখবর করেছেন। সিবিআইয়ের এক পদস্থ আধিকারিকের কথায়, ‘‘তদন্তের স্বার্থে রোজভ্যালি সংস্থা সংক্রান্ত সমস্ত তথ্যই সংগ্রহ করা হচ্ছে। পুরসভাতেও সে কারণেই যাওয়া হয়েছিল।’’ 
সূত্রের খবর, রোজভ্যালি সংস্থার শহরে যে ৩৫টির মতো অফিস রয়েছে, পুরসভার কাছ থেকে সে তথ্য জানতে পেরেছে সিবিআই। এখন সিবিআইয়ের আতসকাচের নীচে সেই অফিসগুলি। পাশাপাশি, পুরসভা কীভাবে কোনও সংস্থাকে ব্যবসার ছাড়পত্র দেয়, তার কী নিয়ম, সে সম্পর্কেও পুর আধিকারিকদের কাছ থেকে বিশদে জানতে চান তদন্তকারীরা।


পুর প্রশাসনের একাংশের অবশ্য বক্তব্য, বিভিন্ন সময়েই সঠিক তথ্য জানতে পুরসভার কাছে সহযোগিতা চায় সিবিআই বা তদন্তকারী অন্য সংস্থা। এটা অস্বাভাবিক নয়। তবে সাম্প্রতিক ঘটনাপ্রবাহের প্রেক্ষিতে রোজভ্যালি নিয়ে জানতে চাওয়াটা যে তাৎপর্যপূর্ণ, তা অস্বীকার করেননি আধিকারিকদের একাংশ। তাঁরা এ-ও জানাচ্ছেন, আগে কোনও তথ্যের দরকার হলে সিবিআই পুরসভাকে নোটিস পাঠাত। কিন্তু সম্প্রতি সেই ধারায় পরিবর্তন এনেছে সিবিআই। স‌ংস্থার অফিসারেরা পুরসভায় সরাসরি হাজির হচ্ছেন। পুরসভার যুগ্ম কমিশনার (রাজস্ব) শাহজাদ সিবলি বলেন, ‘‘অনেক সময়েই তথ্য সংগ্রহে পুরসভার কাছে সহযোগিতা চায় সিবিআই। এটা রুটিন ব্যাপার। কিন্তু নির্দিষ্ট কোনও বিষয়ে জানতে চেয়েছিল কি না, কেউ পুরসভায় এসেছিল কি না, তা বলতে পারব না।’’
প্রসঙ্গত, এর আগেও সারদা গোষ্ঠীর ৪৩টি সংস্থাকে ডায়মন্ড হারবার রোডের একটি ঠিকানায় কীভাবে ট্রেড লাইসেন্স দিয়েছিল পুরসভা, তা জানতে চেয়ে সিবিআই নোটিস পাঠিয়েছিল। এবার মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের (মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যাঁকে ঘরোয়া আলাপচারিতায় কানন বলে ডেকে থাকেন) খাসতালুকে গোলাপ কাঁটা! 

CBI KMC Bhawan
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -