SEND FEEDBACK

English
Bengali

পেপসি, কোক নিয়ে বিভ্রান্তি বাড়ালো রেল। কোন ভরসায় পান করবেন সাধারণ মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদন, এবেলা.ইন | মার্চ ২, ২০১৭
Share it on
দুই সংস্থার নরম পানীয়ের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে, তার ব্যাথ্যা চেয়ে পেপসি এবং কোকা কোলা, এই দুই সংস্থাকেই চিঠি দিয়েছে পশ্চিম মধ্য রেল।

পেপসি, কোকা কোলার মতো নামী ব্র্যান্ডের নরম পানীয়তে ক্ষতিকারক রাসায়নিক থাকার অভিযোগ নতুন কিছু নয়। কিন্তু এমন অভিযোগের ভিত্তিতে দেশের প্রায় তিনশো রেল স্টেশনে নকম পানীয়ের বিক্রি বন্ধ করে দেওয়ার ঘটনা সাম্প্রতিককালে ঘটেনি। আরও তাৎপর্যপূর্ণ ঘটনা হল, একসপ্তাহের বেশি সময় ধরে তিনশো স্টেশনে নকম পানীয়ের বিক্রি বন্ধ থাকলেও পেপসি বা কোকা কোলা, কোনও সংস্থাই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে সদুত্তর দিতে পারেনি বলে অভিযোগ।

পেপসি, কোকা কোলার বিভিন্ন ব্র্যান্ডের নরম পানীয়ে ক্ষতিকারক রাসায়নিক থাকার অভিযোগে সম্প্রতি নিজেদের জোনের প্রায় তিনশো স্টেশনে পেপসি, কোকা কোলার নরম পানীয়ের বিক্রি বন্ধ দিয়েছে পশ্চিম-মধ্য রেল কর্তৃপক্ষ। পশ্চিম-মধ্য রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক সুরেন্দ্র যাদব এবেলা.ইন-কে জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় সরকারের একটি ল্যাবের রিপোর্ট তাঁদের হাতে এসেছে। সেই রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, পেপসি, কোকা কোলার নরম পানীয়ে ক্ষতিকারক রাসায়নিক রয়েছে। এমনকী, সংসদে ওই রিপোর্টের উল্লেখ করে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যপ্রতিমন্ত্রী ফগন সিংহ কুলাস্তে গত নভেম্বর মাসে একটি প্রশ্নের উত্তরও দেন। তা ছাড়া, পশ্চিম মধ্যে রেলের স্টেশনগুলিতে নিজেদের নরম পানীয় বিক্রির জন্য পেপসি এবং কোকা কোলার লাইসেন্সও গত ডিসেম্বর মাসে শেষ হয়ে গিয়েছে।
 
দুই সংস্থার নরম পানীয়ের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে, তার ব্যাথ্যা চেয়ে পেপসি এবং কোকা কোলা, এই দুই সংস্থাকেই চিঠি দিয়েছে পশ্চিম মধ্য রেল। ওই জোনের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিকের অবশ্য দাবি, এখনও পর্যন্ত সেই চিঠির কোনও জবাবই দেয়নি পেপসি বা কোকা কোলা। যতদিন না দুই সংস্থা লিখিতভাবে কিছু জানাচ্ছে, ততদিন পর্যন্ত তাদের নরম পানীয়র বিক্রিও স্টেশনে বন্ধ থাকবে।

আরও পড়ুন

কোল্ড ড্রিংক খাওয়ার পরবর্তী ১ ঘন্টায় আপনার শরীরে কী ঘটে তা কল্পনারও অতীত

কিন্তু ক্ষতিকারক রাসায়নিক থাকার অভিযোগে পশ্চিম মধ্য রেলের স্টেশনগুলিতে পেপসি, কোকা কোলার নরম পানীয়ের বিক্রি বন্ধ থাকলেও রেলের অন্যান্য জোনের স্টেশনগুলিতে এমন কোনও পদক্ষেপের কথা এখনও শোনা যায়নি। দক্ষিণ-পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক সঞ্জয় ঘোষও জানিয়েছেন, রেল বোর্ডের পক্ষ থেকে এই সংক্রান্ত কোনও নির্দেশ তাঁরা পাননি।

এমন পরিস্থিতিতে রেলযাত্রী এবং সাধারণ মানুষের ধোঁয়াশা যে বাড়তে বাধ্য, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। রেলের প্রায় তিনশো স্টেশনে যখন নামী ব্র্যান্ডের নরম পানীয়র বিক্রি বন্ধ রয়েছে, তখন সেই একই ব্র্যান্ডের নরম পানীয় দিব্যি বিক্রি হচ্ছে অন্যান্য স্টেশন এবং সাধারণ দোকানেও।

Pepsi Coca Cola West Central Railway Soft Drinks Health Hazards
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -