SEND FEEDBACK

English
Bengali

লালবাজারে আসতে দুবাইয়ের ঠিকানায় নোটিস। নারাজ ম্যাথু

নিজস্ব সংবাদদাতা | জুলাই ২৩, ২০১৬
Share it on
দিল্লি নয়। গোপন ক্যামেরা অভিযান-কাণ্ডের তদন্তে এবার দুবাইয়ের ঠিকানায় আদালতের নোটিস পাঠানো হল ‘নারদনিউজ ডটকমে’র সিইও ম্যাথু স্যামুয়েলকে।

দিল্লি নয়। গোপন ক্যামেরা অভিযান-কাণ্ডের তদন্তে এবার দুবাইয়ের ঠিকানায় আদালতের নোটিস পাঠানো হল ‘নারদনিউজ ডটকমে’র সিইও ম্যাথু স্যামুয়েলকে। বৃহস্পতিবার পুলিশ নোটিসটি পাঠিয়েছে ম্যাথুকে। ব্যাঙ্কশাল কোর্টের চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সঞ্জয়রঞ্জন পালের জারি করা নোটিসে ম্যাথুকে সাতদিনের মধ্যে লালবাজারে এসে মামলার তদন্তকারী অফিসার বাসুদেব ভট্টাচার্যের সঙ্গে দেখা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু শুক্রবারই ম্যাথু জানিয়েছেন, তিনি লালবাজারে কলকাতা পুলিশের সঙ্গে দেখা করতে পারবেন না। ফোনে সংবাদ সংস্থা পিটিআই’কে তিনি জানান, পুরো বিষয়টি আদালতের বিচারাধীন। তিনি এ ব্যাপারে তাঁর আইনজীবীর সঙ্গে পরামর্শ করছেন। তবে তিনি লালবাজারে আগামী সাতদিনের মধ্যে উপস্থিত হতে পারবেন না। 
উল্লেখ্য, এর আগে ম্যাথুকে কলকাতা পুলিশের পক্ষ থেকে যে দু’বার সমন করা হয়েছিল, সেই সমনগুলিতে তাঁর নাম ও পদের সঙ্গে দিল্লির ঠিকানার উল্লেখ ছিল। কেন এই ঠিকানা বদল সে প্রসঙ্গে এক তদন্তকারী অফিসার জানিয়েছেন, ২৩ জুন এবং ১ জুলাই দিল্লির ঠিকানা দিয়ে ম্যাথুকে সমন পাঠানো হয়েছিল। ম্যাথু না এলেও ওই সমনের জবাব দিয়েছিলেন। তখন তাঁদের কাছে তথ্য ছিল, ব্যক্তিগত কাজে তিনি দুবাইয়ে রয়েছেন। পরে তাঁরা নিশ্চিত হন, দুবাইয়েই ‘নারদনিউজ ডটকমে’র সদর দফতর। তাই তৃতীয় নোটিসটি সেখানেই পাঠানো হয়েছে। এবার আদালতের নোটিস পেয়েও ম্যাথু হাজির না হলে তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির জন্য আদালতে আর্জি জানানো হবে। সেক্ষেত্রে দুবাইয়ের ঠিকানাতেই গ্রেফতারি পরোয়ানা পাঠানো হবে। কিন্তু ম্যাথু আরও জানান, তিনি আইন ভাঙতে পারেন না। কারণ, এই মামলার বিষয়টি কলকাতা হাইকোর্ট দেখভাল করছে। তাই লালবাজারে উপস্থিত হলে সেটি আদালত অবমাননার সামিল হবে বলে তিনি জানান।
ম্যাথু সত্যিই আত্মসমর্পণ না করলে ইন্টারপোলের ‘রেড কর্নার’ নোটিস জারি ছাড়া উপায় থাকবে না। ‘রেড কর্নার’ জারির ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি কোন কোন দেশে থাকতে পারেন, তাঁর কার্যকলাপ সম্পর্কে তদন্তকারী সংস্থার কাছে যে খবর থাকে, তার উল্লেখ করতে হয়। গ্রেফতারি পরোয়ানার সঙ্গে রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিবের সম্মতি-সহ সিবিআইয়ের মাধ্যমে ‘রেড কর্নার’ নোটিসের আবেদন করতে হয় ইন্টারপোলের কাছে। সেক্ষেত্রে দুবাইয়ের ঠিকানায় পাঠানো নোটিস ম্যাথু গ্রহণ করে তার জবাব দিলে প্রমাণ থাকবে যে, তিনি সেখানেই রয়েছেন। যদিও লালবাজারের এক কর্তা জানিয়েছেন, ভারতের সঙ্গে আরব আমিরশাহির বন্দি প্রত্যর্পণ চুক্তি নেই। ম্যাথু ভিসা বাড়িয়ে দীর্ঘদিন দুবাইয়ে থেকে গেলে তাঁকে সহজে আনা সম্ভব নয়। কাউকে অপরাধী হিসাবে এদেশের আদালত পরোয়ানা জারি করলে সংশ্লিষ্ট দেশের সরকারের কাছে ওই ব্যক্তিকে ‘ডিপোর্ট’ করার আবেদন জানানো যেতে পারে। কিন্তু রাষ্ট্রদ্রোহিতার মতো গুরুতর অপরাধের ক্ষেত্রে সেগুলি বিবেচিত হয়।

Mathew Samuels Narada Police
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -