SEND FEEDBACK

English
Bengali

বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ মির্জার বিরুদ্ধে, অস্বস্তিতে রাজ্য সরকার

চন্দ্রপ্রভ ভট্টাচার্য | মার্চ ১৭, ২০১৭
Share it on
নারদ-কাণ্ডে চূড়ান্ত অস্বস্তিতে রাজ্য সরকার। অস্বস্তি বাড়িয়েছে বর্ধমানের প্রাক্তন পুলিশ সুপার এস এম এইচ মির্জার বিরুদ্ধে আদালতের নির্দেশ।

নারদ-কাণ্ডে চূড়ান্ত অস্বস্তিতে রাজ্য সরকার। অস্বস্তি বাড়িয়েছে বর্ধমানের প্রাক্তন পুলিশ সুপার এস এম এইচ মির্জার বিরুদ্ধে আদালতের নির্দেশ।
শুক্রবার আদালতের নির্দেশ, মির্জার বিরুদ্ধে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বিভাগীয় তদন্ত শুরু করতে হবে সরকারকে। প্রয়োজনে এই আইপিএস অফিসারকে সাসপেন্ড করার বিষয়টিও কার্যকর করতে হবে। যে খবরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে প্রশাসনের অন্দরে। নারদ-কাণ্ডে নাম জড়ানোয় মির্জার বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত শুরু হয়েছিল কি না, তা নিয়ে নিশ্চিত নন পুলিশমহলের অনেকেই। রীতি অনুযায়ী, প্রশাসনের কেউ অভিযুক্ত হলে তাঁর বিরুদ্ধে দু’ধরনের তদন্তের উপায় রয়েছে। প্রথমটি, সাধারণ অনুসন্ধান প্রক্রিয়া। দ্বিতীয়টি, বিভাগীয় তদন্ত। বিভাগীয় তদন্তের গুরুত্ব অনেক বেশি। কারণ, মুখ্যমন্ত্রীর ছাড়পত্রের পর বিভাগীয় তদন্তের চূড়ান্ত অনুমোদন দেন রাজ্যপাল।
পুলিশমহলের আরেকটি অংশের ব্যাখ্যা, নারদ-কাণ্ডের তদন্ত শুরুর পরে মির্জাকে বারদুয়েক লালবাজারে ডেকে পাঠিয়েছিল পুলিশ। তবে তাঁর বিরুদ্ধে আপত্তিকর কিছু মেলেনি, তেমন কোনও অভিযোগও জমা পড়েনি। সেই কারণে বিষয়টি বিভাগীয় তদন্তের গুরুত্বের সঙ্গে খাপ খায় না। শুক্রবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে জানতে চাওয়া হয়, হাইকোর্ট যাঁদের নাম বলেছে তাঁদের মধ্যে একজন প্রাক্তন পুলিশ সুপারের (মির্জা) নামও রয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে কী পদক্ষেপ করা হবে? উত্তরে মমতা বলেন, ‘‘ডিপার্টমেন্টাল প্রসিডিং করতে বলেছে। ওটা এমনিই হয়। ওঁর (মির্জা) বিরুদ্ধে আগেও করা হয়েছে বলে আমি যতদূর জানি।’’ 
মির্জা বর্তমানে রাজ্য পুলিশের স্পেশাল স্ট্রাইকিং ফোর্সের (এসএসএফ) কমান্ড্যান্ট পদে রয়েছেন। তাঁর বিরুদ্ধে আদালতের নির্দেশ কার্যকর করতে রাজ্যকে আরও অস্বস্তিতে পড়তে হবে বলে মনে করছেন পুলিশ মহলের অনেকেই। 

 

Mamata Banerjee Narada SMH Mirza
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -