SEND FEEDBACK

English
Bengali

সংস্কৃতিতে ইতির টান, অন্যত্রও নেতির টান দরকার

সম্পাদকীয় | জানুয়ারি ১০, ২০১৭
Share it on
খরচ নিয়ন্ত্রণ করতে ‘স্বাধীন’ অ্যাকাডেমিগুলির ক্ষমতায় লাগাম পরাচ্ছে রাজ্য সরকার। তথ্য ও সংস্কৃতি দফতরের অধীনে যাত্রা, নাট্য, সংগীত ইত্যাদি বিষয়ক বেশ কয়েকটি অ্যাকাডেমি রয়েছে। তারা এতদিন নিজেদের পরিকল্পনামাফিক স্বাধীনভাবে খরচপাতি করে কর্মকাণ্ড বজায় রাখত।

সন্দেহ নেই যে, মিতব্যয়িতা সর্বাবস্থাতেই কার্যকরী প্রক্রিয়া। বিশেষত, সেসব জায়গায়, যেখানে অর্থের অনটন চিরকালীন। এ বঙ্গের ভাণ্ডারে কোনওকালেই বিবিধ রতন নেই ! পুঁজির অভাবে এখানে প্রকল্প শুরু হয় না এবং হলেও অর্থাভাবে বন্ধ হয়ে যায়। উন্নয়ন থমকে থাকে। তাই এখানে টাকা বাঁচানো যে কোনও প্রেক্ষিতেই জরুরি। দুঃখের কথা, রাজ্যের এই ভরাভর্তি অভাবের সংসারে কোনও প্রশাসনই কোনওদিন ‘পেরিনিয়াল’ অর্থসংকটটিকে পাত্তা দেয়নি। কিন্তু এখন সরকার যে এ নিয়ে ভাবছে, সেটাই বড় কথা।

খরচ নিয়ন্ত্রণ করতে ‘স্বাধীন’ অ্যাকাডেমিগুলির ক্ষমতায় লাগাম পরাচ্ছে রাজ্য সরকার। তথ্য ও সংস্কৃতি দফতরের অধীনে যাত্রা, নাট্য, সংগীত ইত্যাদি বিষয়ক বেশ কয়েকটি অ্যাকাডেমি রয়েছে। তারা এতদিন নিজেদের পরিকল্পনামাফিক স্বাধীনভাবে খরচপাতি করে কর্মকাণ্ড বজায় রাখত। এবার থেকে তারা আর ইচ্ছেমতো খরচ করতে পারবে না। ভাল সিদ্ধান্ত। আরও বেশি করে ভাল এই জন্য যে, তথ্য ও সংস্কৃতি দফতরটি রয়েছে স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রীর হাতে। এবং তাঁর দফতরের মারফত এটা শুরু হওয়ার মানে, বিষয়টি গুরুত্ব পাবে। আশা করা যায়, আগামিদিনে প্রায় সব দফতরই এই মিতব্যয়িতার ‘লাইন’ নেবে।

কিন্তু ইংরেজিতে একটি কথা আছে— ‘পেনি ওয়াইজ, পাউন্ড ফুলিশ’। এক আনা বাঁচিয়ে দশ আনা খরচ করে ফেলার মতো। আশা করা চলে, সরকার এই প্রবচনটি সম্বন্ধে অবহিত। তবে, শুধু অবহিত হলেই চলবে না। সেই মোতাবেক আচরণও করতে হবে। নিত্যনতুন উৎসবের সূচনা ও পৃষ্ঠপোষণায় রাজকোষের অর্থের একটা বড় পরিমাণ খরচ হয়ে এসেছে। শুধু উৎসব-আয়োজনই নয়, রয়েছে পুরস্কারপ্রদান, সম্মাননার অনুষ্ঠানও। নতুন ব্যবস্থায় সেসব আয়োজনেও লাগাম টানা যাবে বলে আশা করা যায়। উৎসব বা সম্মাননা নিঃসন্দেহে সাংস্কৃতিক মনোভাবনার পরিচায়ক। জরুরিও। কিন্তু ঋণ করে ঘৃত আস্বাদনের চার্বাক দর্শন প্রশাসনিক গতিকে শ্লথই করে। ব্যয়ে যথোচিত লাগাম না-পরালে বাঁধের একদিকের গর্ত বন্ধ হলেও অন্যদিকের ছিদ্র দিয়ে জল বেরিয়ে যায়। কাজেই, মুখ্যমন্ত্রীর এই সিদ্ধান্ত যথাযথ এবং সময়োপযোগী। বিশেষত, নোট বাতিল পরবর্তী অর্থনৈতিক মাৎস্যন্যায়ের সময়পর্বে।  

Mamata Banerjee Cultural cost
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -