SEND FEEDBACK

English
Bengali

নারদ-কাণ্ডের ভিডিও ফুটেজ পরীক্ষার জন্য চণ্ডীগড়ে পাঠানোর নির্দেশ হাইকোর্টের

নিজস্ব সংবাদদাতা | জুন ২৫, ২০১৬
Share it on
নারদ-কাণ্ডের ভিডিও ফুটেজের সত্যতা যাচাই করতে সেটি এবার চণ্ডীগড়ের ‘সেন্ট্রাল ফরেন্সিক সায়েন্স ল্যাবরেটরি’তে (সিএফএসএল) পাঠানোর নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। শুক্রবার প্রধান বিচারপতি মঞ্জুলা চেল্লুর ও বিচারপতি অরিজিত্ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ নির্দেশ দিয়েছে, হাতে পাওয়ার চার সপ্তাহের মধ্যে ওই ভিডিও ফুটেজ পরীক্ষা করে রিপোর্ট জমা দিতে হবে সংশ্লিষ্ট সংস্থাকে।

নারদ-কাণ্ডের ভিডিও ফুটেজের সত্যতা যাচাই করতে সেটি এবার চণ্ডীগড়ের ‘সেন্ট্রাল ফরেন্সিক সায়েন্স ল্যাবরেটরি’তে (সিএফএসএল) পাঠানোর নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। শুক্রবার প্রধান বিচারপতি মঞ্জুলা চেল্লুর ও বিচারপতি অরিজিত্ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ নির্দেশ দিয়েছে, হাতে পাওয়ার চার সপ্তাহের মধ্যে ওই ভিডিও ফুটেজ পরীক্ষা করে রিপোর্ট জমা দিতে হবে সংশ্লিষ্ট সংস্থাকে।  
গত ২৯ এপ্রিল  নারদনিউজ ডটকমের গোপন ক্যামেরা অভিযানের ভিডিও ফুটেজ পরীক্ষার জন্য হায়দরাবাদের সিএফএসএলের দফতরে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্ট। কিন্তু ওই ফুটেজ পরীক্ষা করতে তারা অপারগ বলে এদিন রিপোর্ট দিয়ে আদালতে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট শাখার অধিকর্তা। তাদের পরামর্শ মেনেই ওই ভিডিও ফুটেজ চণ্ডীগড় শাখায় পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে ডিভিশন বেঞ্চ। অন্যদিকে, তদন্তের জন্য ইতিমধ্যেই নারদনিউজ ডটকমের প্রধান ম্যাথু স্যামুয়েলকে তলব করেছে কলকাতা পুলিশ। তাত্পর্যপূর্ণভাবে এদিন নারদ-কাণ্ডে দায়ের হওয়া মামলার শুনানি হলেও সেখানে ওই বিষয়টির কোনও উল্লেখ করা হয়নি।
আদালতের নির্দেশে আগেই গোপন ক্যামেরা অভিযানে ব্যবহৃত আই ফোন, ল্যাপটপ ও পেন ড্রাইভ আদালতে জমা দিয়েছেন ম্যাথু। তা পরীক্ষার জন্য হায়দরাবাদে পাঠিয়েছিল হাইকোর্ট। সত্যতা যাচাই করে রিপোর্ট তলব করা হয়েছিল সেখানকার অধিকর্তার কাছ থেকে। এদিন ওই রিপোর্ট জমা পড়েছে হাইকোর্টে। রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে যে, ম্যাথুর দাবি ছিল তিনি আই ফোনে ভিডিও রেকর্ডিং করে তা ল্যাপটপে রেখেছিলেন। পরবর্তী সময়ে ভিডিও ফুটেজ ল্যাপটপ থেকে পেন ড্রাইভে স্থানান্তরিত করা হয়। সিএফএসএল তার রিপোর্ট জানিয়েছে, ওই ল্যাপটপের হার্ড ডিস্কে প্রাথমিকভাবে কোনও ভিডিও পাওয়া যায়নি। হার্ড ডিস্কে তা রাখা হয়েছিল কি না, এবং থাকলে সেখান থেকে ভিডিও ফুটেজ উদ্ধার করে পরীক্ষার জন্য বিশেষজ্ঞ ও প্রয়োজনীয় যন্ত্র তাদের কাছে নেই। তাই এখন ওই ফুটেজ পরীক্ষা করে তার সত্যতা যাচাই করা সম্ভব নয়। তবে ওই ধরনের পরীক্ষার ব্যবস্থা রয়েছে চণ্ডীগড়ে। হাইকোর্ট চাইলে সেখানে পাঠাতে পারে। হায়দরাবাদ থেকে পাঠানো ওই রিপোর্টকে গুরুত্ব দিয়ে ফের তা চণ্ডীগড়ে পাঠাতে এদিন নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। এ প্রসঙ্গে ম্যাথু বলেন, ‘‘বিচারব্যবস্থার উপরে আস্থা রয়েছে। হাইকোর্টের পর্যবেক্ষণকে স্বাগত জানাচ্ছি।’’
ম্যাথুকে ই-মেলে সমন পাঠিয়েছিল কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের আর্থিক অপরাধ দমন শাখা। ম্যাথুর দাবি, এদিন সন্ধ্যা পর্যন্ত তিনি ওই ই-মেলের কোনও জবাব পাঠাননি। নারদনিউজ ডটকমের প্রধান আরও জানিয়েছেন, আগামিকাল, রবিবার দেশে ফিরবেন তিনি।
উল্লেখযোগ্যভাবে, নারদ-কাণ্ড নিয়ে দায়ের হওয়া মামলার শুনানি থাকলেও এদিন কলকাতা পুলিশের তদন্তের বিষয়ে কোনও উল্লেখ করেননি আবেদনকারী বা ম্যাথুর আইনজীবী। হাইকোর্টের আইনজীবীদের একাংশের মতে, আইন মেনে রাজ্যের তদন্তকে চ্যালেঞ্জ করে কোনও মামলা দায়ের হয়নি। আবার প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ রাজ্যের তদন্তে হস্তক্ষেপ করেনি। তাই এই অবস্থায় তদন্ত বহালই রয়েছে বলা যায়। অনেকের মতে, এই মামলা ফের দেড় মাস পরে শুনানির জন্য গ্রহণ করা হবে। আদালতের কোনও নির্দেশ না থাকলে ওই সময়ের মধ্যে পুলিশের তদন্ত অনেকটাই এগিয়ে যাবে। ওই সময়ে পুলিশকেও মোকাবিলা করতে হবে ম্যাথুকে। তদন্তের এই বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি তিনি। জানিয়েছেন, আইনজীবীদের পরামর্শ মেনে সিদ্ধান্ত নেবেন। 

Narada Mathew samuels
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -