SEND FEEDBACK

English
Bengali

সাংসদের গ্রেফতারিতে গিরিশ-গৃহ সংস্কারের ভবিষ্যৎ এখন সিবিআইয়ের হাতে

দেবাশিস ঘড়াই | জানুয়ারি ১০, ২০১৭
Share it on
সবকিছু ঠিকঠাকই চলছিল। প্রাথমিকভাবে সিদ্ধান্তও হয়ে গিয়েছিল যে, বছরের শুরুতেই বাড়ি সংস্কারের কাজ শুরু হবে। কিন্তু রোজভ্যালি-কাণ্ডে সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের গ্রেফতারের পরেই সেই চিত্রনাট্যে আচমকা পট পরিবর্তন!

সবকিছু ঠিকঠাকই চলছিল। প্রাথমিকভাবে সিদ্ধান্তও হয়ে গিয়েছিল যে, বছরের শুরুতেই বাড়ি সংস্কারের কাজ শুরু হবে। কিন্তু রোজভ্যালি-কাণ্ডে সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের গ্রেফতারের পরেই সেই চিত্রনাট্যে আচমকা পট পরিবর্তন!

পরিস্থিতি এখন যা দাঁড়িয়েছে, তাতে নাট্যকার গিরিশচন্দ্র ঘোষের বাড়ি সংস্কারের ‘ভাগ্য’ এখন ঝুলে রয়েছে সিবিআইয়ের উপরে। কারণ, সুদীপের সাংসদ তহবিল থেকেই বাগবাজারে ঐতিহ্যবাহী ওই বাড়ির সংস্কারের কথা ছিল। সিবিআই সুদীপকে গ্রেফতার করায় সেই পরিকল্পনাই ভেস্তে যেতে বসেছে। 

সূত্রের খবর, কিছুদিন আগে নাট্যকারের বাড়ির সংস্কার নিয়ে একটি বৈঠক হয়েছিল। সেই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন সুদীপ, কলকাতা পুরসভার আট নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর পার্থ মিত্র, উত্তর কলকাতার বিশিষ্ট নাগরিক তথা প্রাক্তন বিচারপতি শ্যামল সেন প্রমুখ। সেই বৈঠকেই প্রাথমিকভাবে বাড়ি সংস্কারের জন্য প্রায় ৭৬ লক্ষ টাকা খরচ ধরা হয়েছিল। সুদীপ নিজের সাংসদ তহবিল থেকে সেই টাকা দিতে রাজি হয়েছিলেন। কিন্তু সইসাবুদ না হওয়ায় বর্তমানে তা অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে।

পার্থ বলেন, ‘‘গিরিশ ঘোষের বাড়ি সংস্কার নিয়ে বৈঠক হয়েছিল। দীর্ঘদিন ধরেই বাড়িটি সংস্কারের কথা ভাবছিলাম। সেইমতো প্রচেষ্টা শুরু করেছিলাম। সুদীপ’দাও প্রয়োজনীয় অর্থসাহায্য করতে রাজি হয়েছিলেন।’’ শ্যামল বলেন, ‘‘বাড়ি সংস্কারের একটা কথা হয়েছিল ঠিকই। কিন্তু তারপর সেটার কী হল, তা জানি না।’’
প্রসঙ্গত, এর আগে গিরিশ ঘোষের বাড়ির রং নিয়ে একবার বিতর্ক হয়। প্রথমবার ক্ষমতায় আসার পর তৃণমূল পুরবোর্ড নাট্যকারের বাড়ির রং নীল-সাদা করে দেয়। কিন্তু সর্বস্তরে সমালোচনা শুরু হওয়ায় তা পাল্টে ফের হলুদ রং করা হয়।

কিন্তু এবার সংস্কারে আর কোনওরকম বিতর্কের অবকাশ থাকবে না বলে জানাচ্ছেন পার্থ। বাড়ি সংস্কারের পাশাপাশি গিরিশের সমসাময়িক ছ’জন মনীষীর মূর্তি বসানোরও পরিকল্পনা করা হয়েছে। পার্থ বলেন, ‘‘পুরো বাড়ির মেঝেতে মার্বেল বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে। বাড়িটি লোহার রেলিংয়ে ঘেরা হবে। সঙ্গে আলোর ব্যবস্থা, ফোয়ারা থাকবে।’’
কিন্তু এখন পরিস্থিতি যা, তাতে কবে সুদীপ সিবিআইয়ের হাত থেকে ছাড়া পাবেন, সেদিকেই তাকিয়ে থাকতে হচ্ছে সকলকে।

Girish Ghosh Sudip banerjee
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -