SEND FEEDBACK

English
Bengali

জমি সমস্যা সমাধানে ‘হাইব্রিড’ বাচ্চার ‘প্রতিশ্রুতি’ রেজ্জাকের! দেখুন ভিডিও

নিজস্ব প্রতিবেদন, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, এবেলা.ইন | জানুয়ারি ১২, ২০১৭
Share it on
রেজ্জাকের বক্তব্যে উঠে এসেছে কন্ডোম-সহ গর্ভনিরোধকের ভূমিকার কথাও। স্থানীয় বিধায়কের কথা শুনে তখন উপস্থিত সাধারণ মানুষের মধ্য হাসির রোল ওঠে।

দক্ষিণ ২৪ পরগনার ভাঙরে পাওয়ার গ্রিড কর্পোরেশনের বিদ্যুৎ সাব-স্টেশন তৈরিকে ঘিরে শুরু হয়েছে জমি আন্দোলন। সাব-স্টেশনটি ইতিমধ্যে তৈরি হয়ে গেলেও লাগোয়া এলাকার কৃষি জমির উপরে বিদ্যুতের খুঁটি পোঁতা এবং উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুতের তার নিয়ে যাওয়ার বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন গ্রামবাসীরা। তাঁদের দাবি, বিদ্যুৎ সাব-স্টেশনের কাজ বাতিল করতে হবে। 

কৃষি জমির উপরে বিদ্যুতের খুঁটি বসলে জমির দাম কমবে, চাষের অসুবিধা হবে বলে অভিযোগ জমির মালিকদের। এছাড়াও বিদ্যুৎ প্রকল্পকে ঘিরে নানা রকমের ‘গুজব’ ছড়িয়েছে এলাকায়। গ্রামবাসীদের দাবি, বিদ্যুৎ সাবস্টেশন চালু হলে এবং এলাকার উপর দিয়ে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুতের তার গেলে, এলাকার পুরুষ এবং মহিলাদের উপরে তার ক্ষতিকারক প্রভাব পড়বে। যার জেরে পুরুষ এবং মহিলাদের সন্তান জন্ম দেওয়ার ক্ষমতা হারিয়ে যেতে পারে। শুধু তাই নয়, এলাকার কৃষি উৎপাদন, মাছ চাষের উপরেও ক্ষতিকারক প্রভাব পড়বে।

যত দিন যাচ্ছে, আন্দোলনের তীব্রতা আরও বাড়ছে। গ্রামবাসীদের বোঝাতে বেশ কিছুদিন ধরে এলাকায় সভা-সমাবেশ করেছেন তৃণমূলের নেতা মন্ত্রীরা। ভাঙরে যাতে সিঙ্গুরের পুনরাবৃত্তি না হয়, তা নিশ্চিত করা এখন শাসক দলের নেতা-মন্ত্রীদের কাছে বড় চ্যালেঞ্জ। গ্রামবাসীদের বোঝানোর দায়িত্ব পড়েছে স্থানীয় বিধায়ক এবং রাজ্যের মন্ত্রী রেজ্জাক মোল্লার উপরে। যে খামারাইট গ্রামে বিদ্যুৎ সাব-স্টেশন তৈরি হয়েছে, সপ্তাহ তিনেক আগে সেখানেই একটি সভা করেছিলেন রেজ্জাক মোল্লা। বিদ্যুৎ সাব-স্টেশন তৈরি হওয়ার সঙ্গে সন্তান জন্ম দেওয়ার ক্ষমতা হ্রাস পাওয়ার যে কোনও সম্পর্ক নেই, নিজস্ব কায়দাতেই তা বোঝানোর চেষ্টা করেন রেজ্জাক সাহেব। সেই প্রসঙ্গেই নিজের মতো করে উদাহরণ দিয়েছেন তিনি। পরিচিত ঢঙেই গ্রামবাসীদের সামনে পেশ করেছেন অকাট্য যুক্তি। এর পরেই রীতিমতো চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেওয়ার কায়দায় রেজ্জাক বলেন, ‘পাওয়ার স্টেশনের জন্য বাচ্চা হচ্ছে না, এমন ঘটনা কেউ খুঁজে দেখাক। বাচ্চা না হলে আমি হাইব্রিড বাচ্চা এনে দেব।’ রেজ্জাকের বক্তব্যে উঠে এসেছে কন্ডোম-সহ গর্ভনিরোধকের ভূমিকার কথাও। স্থানীয় বিধায়কের কথা শুনে তখন উপস্থিত সাধারণ মানুষের মধ্য হাসির রোল ওঠে।

আরও পড়ুন

সিঙ্গুরের ছায়া ভাঙরে! নিজেদের অস্ত্রে নিজেরাই ঘায়েল তৃণমূল সরকার?

একই সঙ্গে স্বীকার করে নিয়েছেন, বিদ্যুৎ সাব-স্টেশন নিয়ে গ্রামবাসীদের বোঝানোর ক্ষেত্রে শুরু থেকেই ঘাটতি ছিল স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের। রেজ্জাকের কথায়, তৃণমূল নেতাদেরই বিদ্যুৎ সাব-স্টেশন নিয়ে কোনও স্পষ্ট ধারণা ছিল না, ফলে গ্রামবাসীদেরও তাঁরা বোঝাতে ব্যর্থ হয়েছেন। রেজ্জাকের এই বক্তব্যের পরেও অবশ্য কাজের কাজ হয়নি। জমি আন্দোলনকে ঘিরে এখনও উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে ভাঙড়।

সেদিন কী বলেছিলেন রেজ্জাক? দেখুন ভিডিও

Bhangar Rezzak Mollah Power Station
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -