SEND FEEDBACK

Cancel
English
Bengali
Cancel
English
Bengali
হক কথা

যিশুকৃষ্ণ যিশুকৃষ্ণ কৃষ্ণ কৃষ্ণ যিশু যিশু, বড়দিনে তিনি মেলালেন

ডিসেম্বর ২৫, ২০১৮
```` Comments
কী বলবেন একে? সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি? নাকি নেহাতই বাড়ির বালগোপালকে নিয়ে খিল্লি? যাই বলুন না কেন, এই ছবিতে এমন কিছু ফুটে উঠেছে, যা বাঙালির অন্তরের একান্ত কাহিনি।

মেলালেন তিনি মেলালেন। সক্কাল সক্কাল ফেসবুক উপচে ওঠা মেরি ক্রিসমাসের শুভেচ্ছাকে টপকে ভাইরাল এই ছবি। কী বলবেন একে? সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি? নাকি নেহাতই বাড়ির বালগোপালকে নিয়ে খিল্লি? যাই বলুন না কেন, এই ছবিতে এমন কিছু ফুটে উঠেছে, যা বাঙালির অন্তরের একান্ত কাহিনি।

দেশ জুড়ে দাবড়ে বেড়ানো গোরক্ষকরা কী বলবেন জানি না। হয়তো গো-পালকে সান্তা সাজানোয় ক্ষিপ্ত হবেন। অথবা সান্তাকে গো-পালের পোশাকে দেখে, তাঁর স্লেজ থেকে বল্গা হরিণ খুলে গরু জুড়ে দিতে বলবেন খুশি হয়ে। কিন্তু তাতে বাঙালির কিস্যু যায় বা আসে না, তার প্রমাণ এই ছবি। 


এই সেই পোস্ট

বালগোপালকে বাঙালি যতটা না দেবতা বলে মনে করেছে, তার থেকেও বেশি সে পরিবারের সদস্য। তাকে খাওয়ানো, ঘুম পাড়ানো থেকে শুরু করে তার বায়না মেটানো পর্যন্ত বাঙালির কাছে নৈমিত্তিক ব্যাপার। ফলে বড়দিনের দিন, বাঙালি তাকে সান্তার পোশাক পরিয়ে পাশে চকোলেট রেখে উদযাপিত হতেই পারে ‘যিশুদিবস’। বেথলেহেমে তো গোয়ালেই জন্মেছিলেন যুগপুরুষ!

‘কলকাতা (সিটি অফ জয়)’ নামের এক ফেসবুক পেজে শেয়ার করা মাত্রাই ছড়াতে থাকে এই ছবি। বাঙালির সেন্টিমেন্টের সর চেঁছে গোপালের এই ছবি এখন ভাইরাল। রসিকজনের মন্তব্য— পার্ক স্ট্রিটে ভিড় যত বাড়বে, ততই ছড়াবে ‘সান্তাগোপাল’।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

বাঙালির বড়দিন পালনের হিড়িকেরও ‘সাক্ষীগোপাল’ সে-ই। কলোনি-র তলানি চুঁইয়ে নামতে নামতেই এতদূর। বাঙালির সাহেব সাজতে একটুও ব্রীড়া নেই। নিজে মাথায় টুপি পরলে বাড়ির বালগোপালই বা বাদ যাবে কেন! তাই সম্প্রীতি-ফম্প্রীতি নয়, স্রেফ হুজুগেই গোপালের বড়দিন। এমনটা বলছেন বটে কেউ কেউ। তবে, দুর্জনে কী না বলে!

গোপাল কী বললেন? সেটা কিন্তু ফেসবুকে নেই। গোপন সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, পশমি সান্তা-পোশাকে তাঁর দিব্যি আরাম এই শীতে। পাশে রাখা চকোলেটেও তিনি খুশ। চকোলেটও তো ডেয়ারি প্রোডাক্ট! গোরক্ষকদের কোনও আপত্তি উঠতেই পারে না। কিন্তু গোপাল বাবাজি কানে কানে অন্য কথা জানালেন যে! আগামী ইদের দিনে জায়নমাজ চাইছেন তিনি। আর একটা ফেজ টুপি। সক্কাল সক্কাল নামাজ আদায় করে মুখ দেখাবেন ফেসবুকে। গিরিগোবর্ধনধারী একবার পরখ করতে চান সম্প্রীতির স্ট্রেংথ।  

 

অনির্বাণ মুখোপাধ্যায়: ভালবাসেন কবিতা আর ভূতের গল্প। গান শোনা আর বই পড়াতেই মোক্ষ।

আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -