SEND FEEDBACK

Cancel
English
Bengali
Cancel
English
Bengali
হক কথা

গৌতম হাসপাতালে, বুদ্ধ গৃহবন্দি, ব্রিগেড জমাবে কে, কপালে ভাঁজ সিপিএম-এর

জানুয়ারি ২৮, ২০১৯
```` Comments
দল ভালই জানে গৌতম-বুদ্ধ বিহীন ব্রিগেড পানসে। আজও বুদ্ধবাবুর কথাই শুনতে চাইবেন লক্ষ মানুষ। গৌতমের বোমায় মুহুর্মুহু হাততালির দৃশ্যও দেখা যাবে না এবার। এমত অবস্থা কী ভাবে সামাল দেবে বামেরা?

‘ডিম্ভাত’ নিয়ে তৃণমূলকে টিটকিরি দেওয়ার দিন শেষ। আর মাত্র কয়েক দিন। গোটা রাজ্য তাকিয়ে আছে সিপিএম-এর দিকে। ভিড় হয়তো সেখানেও হবে, কিন্তু আসর জমাবে কে?

ব্রিগেড জমাতে সিপিএম-এর গত এক দশকের তাস ছিলেন গৌতম দেব ও বুদ্ধদেব ভট্টাটার্য। সিপিএমের অতি দুর্দিনেও গৌতমের দমক চমক আর বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের আত্মপ্রত্যয় অটুট ছিল। দেওয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়া দলকে বার বার অক্সিজেন জুগিয়েছিল। কিন্তু আজ তাঁরাও কেউ নেই। ফলে ব্রিগেডমুখী সিপিএম দলটাই এবার যেন কোণঠাসা। 

সোমবার দুপুরে বাড়িতেই পড়ে গিয়ে গুরুতর আহত হয়েছেন গৌতম দেব। আপাতত হাসপাতালেই কাটাতে হবে দিনকয়েক। কোমরের অস্ত্রোপচারের জন্য চিকিৎসকরা তাঁকে আপাতত পর্যবেক্ষণের অধীন রেখেছেন। ফলত ভোকাল টনিকে ঝড় তোলার পুরনো টোটকা মিস করবে দলের কমরেডরা।

অন্য দিকে নিজেকে গুটিয়েই নিয়েছেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। শারীরিক অসুস্থতায় জেরবার বুদ্ধবাবু রাজ্য কমিটি থেকেই সরে দাঁড়িয়েছেন অনেক দিন। ইদানীং শরীর আরও খারাপ হওয়ায় বাড়ি থেকে বের হওয়াই পুরোপুরি বন্ধ হয়েছে তাঁর। বাধ্যতই তাঁকে ফেলতে হচ্ছে দলের অনুরোধ। দলের শত অনুরোধেও তিনি নিরুপম সেনের স্মরণসভায় আসেননি। ব্রিগেডেও তাঁকে পাওয়া যাবে না, এমনটাই ধরে নিয়েছে দল। 

দল ভালই জানে গৌতম-বুদ্ধ বিহীন ব্রিগেড পানসে। আজও বুদ্ধবাবুর কথাই শুনতে চাইবেন লক্ষ মানুষ। গৌতমের বোমায় মুহুর্মুহু হাততালির দৃশ্যও দেখা যাবে না এবার। এমত অবস্থা কী ভাবে সামাল দেবে বামেরা? সাড়ে তিন বছর পরে এ বারের ব্রিগেড সফল করার মরিয়া চেষ্টা কতটা সফল হবে? 

বেনজির কোণঠাসা অবস্থায় দলের তরফ থেকে মরিয়া চেষ্টা চলছে যাতে বুদ্ধবাবুর লিখিত বয়ান পাওয়া যায়। পাওয়া গেলে তাই পড়ে শোনানো হবে মঞ্চ থেকে।

তবে তাতে যে খুব ভাল চিঁড়ে ভিজবে না— এ কথা অতি বড় সিপিএম সমর্থকও জানে। ঝুলি থেকে তাই শেষ তাসটি সন্তর্পণে বের করতে চলেছে বামেরা।

এই মুহূর্তের সবচেয়ে বিশ্বাসযোগ্য তরুণ বাম মুখ কানহাইয়া কুমার আসতে চলেছেন ব্রিগেডে। তাঁর কথাতেই মাঠ ভরাবার স্বপ্নে মশগুল বাম শিবির। জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের চার্জশিট-কাণ্ডের পর গোটা দেশের চোখ এখন তাঁর দিকেই।
 

কানহাইয়া কি পারবেন গৌতম-বুদ্ধর শূন্যস্থান পূরণ করতে? নিজস্ব ছবি

 

অন্য দিকে রাজ্য রাজনীতি হোক বা জাতীয় রাজনীতি, বামেদের এই মুহূর্তে ইস্যুরও অভাব নেই। ফলে মন জেতার সুবর্ণ সুযোগ কানহাইয়ার সামনে।

কানহাইয়া কি পারবেন দূর দূরান্ত থেকে আসা মানুষজনকে হারানো প্রত্যয় ফিরিয়ে দিতে? গৌতম-বুদ্ধ জুটি যখন অস্তাচলে, কানহাইয়া কি একা কুম্ভ হয়ে রক্ষা করতে পারবেন নকল বুঁদির গড়? বাতাসে বনবনিয়ে ঘুরছে প্রশ্ন।  

অর্ক দেবঃ সাংবাদিক। গ্রন্থনির্মাণ ও সম্পাদনায় আগ্রহী।  

আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -