গোটা দেশ অপেক্ষা করছে ফাইভ-জি পরিষেবার জন্য। সকলেরই চাই উন্নত মানের ইন্টারনেট পরিষেবা। ডিজিটাল ইন্ডিয়া গড়তে চান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। আর তার জন্যই লক্ষ্য দেশে ইন্টারনেটে ফাইভ-জি পরিষেবা চালু করা।

অপেক্ষা আর চার বছরের। ২০২২ সালের মধ্যে দেশে ফাইভ-জি পরিষেবা চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। আসলে ভারতকে অপেক্ষা করতে হচ্ছে অন্যান্য দেশের উপরে। আগামী দু’বছরের মধ্যেই দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান, চিনে চালু হয়ে যাবে ফাইভ-জি পরিষেবা। আর তার পরেই ভারতে চলে আসবে দ্রুত গতির ওই ইন্টারনেট পরিষেবা। কেন্দ্রীয় টেলিকম সচিব সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছে, এখন যা পরিস্থিতি তাতে ভারতে ২০২২ সালের মধ্যেই ফাইভ-জি পরিষেবা চালু করা সম্ভব হবে।

টেলিকম সচিব অরুণা সুন্দররাজন জানিয়েছেন, ওই লক্ষ্যে আগামী ২০২০ সাল নাগাদ শুরু হয়ে যাবে চূড়ান্ত পর্যায়ের প্রস্তুতি। হংকং কেন্দ্রীক সমীক্ষক সংস্থা ক্রিস্টোফার লেন জানিয়েছে আগামী দক্ষিণ কোরিয়া এবং জাপানে ২০১৯ সালেই ফাইভ-জি চালু হয়ে যাবে। ২০২০ সালের মধ্যে সাফল্য পেয়ে যাবে চিনও। এর ফলে ভারতও পরবর্তী দু’বছরের মধ্যে ইন্টারনেট পরিষেবার ক্ষেত্রে অনেকটাই এগিয়ে যাবে। 

ভারতে এখনও পর্যন্ত ১৫ লক্ষ কিলোমিটার ফাইবার পাতার কাজ শেষ করে ফেলেছে। বাকি চার বছরের মধ্যে আরও ২৫ লক্ষ কিলোমিটার ফাইবার পাততে হবে।