দেশটা সুদূর চেক প্রজাতন্ত্র। সেখানেই সফরে ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। গত সপ্তাহে বিশেষ একটি অনুষ্ঠানে প্রাগের চার্লস বিশ্ববিদ্যালয়ে আমন্ত্রিত ছিলেন রামনাথ। এই অনুষ্ঠানেই বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী মুগ্ধ করলেন তাঁকে।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

জুজানা স্পিকোভা। চার্লস বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্ডোলজি বা ভারততত্ত্বের ছাত্রী এই চেক তরুণী। ভারতীয় রাষ্ট্রপতির সামনে স্পষ্ট বাংলায় বক্তৃতা করেন তিনি। এমন অভ্যর্থনায় কার্যত হতবাক হয়ে পড়েন কোবিন্দ।


চার্লস বিশ্ববিদ্যালয়ে হাজির রাষ্ট্রপতি। ছবি: পিটিআই

বাংলা ভাষার প্রতি জুজানার প্রেম বিস্মিত করারই মতো। তাঁর বক্তৃতায় তিনি বলেন, ‘‘আমি চার্লস বিশ্ববিদ্যালয়ে সংস্কৃত ও বাংলা ভাষা নিয়ে পড়াশোনা করি। এক সময় বাংলা সাহিত্যের প্রেমে পড়ে আমি বাংলা ভাষাও শিখতে শুরু করেছি। বাংলা সাহিত্য আমাদের দেশে খুবই জনপ্রিয়। প্রথম অবাঙালি যিনি রবীন্দ্রনাথের রচনা বাংলা থেকে অনুবাদ করেন, তিনি হলেন চার্লস বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডক্টর ভিনসেন্ট লেসনি। তাঁর ‘গীতাঞ্জলি’ কবিতা ও একটি ছোটগল্পের অনুবাদ বেরিয়েছে ১৯১৪ সালে। রবীন্দ্রনাথ ও ভিনসেন্ট লেসনির সম্পর্ক ছিল শ্রদ্ধা ও মিত্রতাপূর্ণ। তাকে পূর্ব–পশ্চিমের মিলনও বলা যায়।’’

দেখুন চেক তরুণীর সেই বাংলা বক্তৃতা

চেক প্রজাতন্ত্রের মানুষ চেক অনুবাদে বাংলা সাহিত্য পড়ে থাকেন বলে জানান জুজানা। রবীন্দ্রনাথ ছাড়াও শক্তি, সুনীল, বিভূতিভূষণ, শংকর ও শরৎচন্দ্রের কথাও উঠে আসে তাঁর বক্তৃতায়। দু’দেশের সম্পর্ক ভবিষ্যতে আরও মজবুত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন জুজানা।