বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের বিরুদ্ধে বুধবার ব্যাঙ্কশাল আদালতে মানহানির মামলা করলেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর অমিতকে বক্তব্য জানানোর জন্য আদালতে আসার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

অভিষেকের আইনজীবী সঞ্জয় বসু চিফ মেট্রোপলিটান ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে মামলাটি দায়ের করেন। সঙ্গে ছিলেন অভিষেক এবং তাঁর ঘনিষ্ঠ দুই যুব তৃণমূল নেতা সৌম বক্সি এবং স্বরূপ বিশ্বাস। ওই দুই যুব তৃণমূলনেতা মামলায় সাক্ষী হয়েছেন। অভিষেকের আইনজীবী সঞ্জয় বলেন, ‘‘এদিন মামলাকারী হিসাবে অভিষেক এবং সাক্ষী হিসাবে সৌম এবং স্বরূপের বয়ান রেকর্ড হয় আদালতে। বিচারক মামলাটি গ্রহণ করে অমিতকে আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর আদালতে হাজির হওয়ার নোটিস দিয়েছেন।’’

গত ১১ অগস্ট মেয়ো রোডে বিজেপি’র যুব সংগঠনের সমাবেশ মঞ্চ থেকে নাম না করে অভিষেকের উদ্দেশে তির্যক মন্তব্য করেছিলেন অমিত।  বলেছিলেন, ‘‘তৃণমূল সরকারে আসার পর সারদা, নারদ, রোজভ্যালি, সিন্ডিকেটের ভ্রষ্টাচার— ভ্রষ্টাচারের সিরিজ তৈরি হয়েছে...’’। কেন্দ্রের দেওয়া অর্থ ‘ভাইপো’ এবং সিন্ডেকেটকে উপহার হিসাবে দেওয়া হয়েছে বলেও অমিত ওই সভায় মন্তব্য করেছিলেন।

ওই মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চাইতে বলে কয়েকদিন আগে অমিতকে আইনি নোটিস পাঠিয়েছিলেন অভিষেকের আইনজীবী। কিন্তু নোটিসে দেওয়া সময়সীমার মধ্যে অমিত ক্ষমা না-চাওয়ায় এদিন তাঁর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়।

অমিতের বক্তব্য সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হতেই অভিষেককে চিঠি পাঠিয়েছিলেন সৌম এবং স্বরূপ। অমিতের অভিযোগ সম্পর্কে অভিষেকের প্রতিক্রিয়া জানতে চেয়েছিলেন তাঁরা। সূত্রের খবর, অমিতের তোলা অভিযোগের কারণে অভিষেকের সম্পর্কে ধারণা খারাপ হতে পারে বলে তাঁরা ওই চিঠিতে লিখেছিলেন।
মামলার বিষয়ে বিজেপি’র জাতীয় সম্পাদক রাহুল সিংহের প্রতিক্রিয়া, ‘‘অমিত’জি ভুল কিছু বলেননি। যা সত্য তাই বলেছেন। ওদের কোনও কাজ নেই, তাই মামলা করেছে।’’