সাদামাটা একটি টি-শার্ট। তাতে লেখা স্ত্রী অঙ্গের আভিধানিক অর্থ। সেই নিয়েই তুলকালাম সোশ্যাল মিডিয়ায়। রীতিমতো খাপ পঞ্চায়েত বসল অভিনেত্রীর বিচার করতে।

টিভি সিরিজ ‘এমটিভি গার্লস অন টপ’ (২০১৬) অথবা ‘রেস থ্রি’ (২০১৮)-এর দৌলতে সালোনি চোপড়া সংবাদ শিরোনামে আসেন। একই সঙ্গে পরিচিতি পায় তাঁর লেখালেখি, বিশেষত পুরুষতান্ত্রিকতার বিরোধিতা করে তাঁর অবস্থান। এবার এই বিরোধিতার নতুন পন্থাকে ঘিরেই উত্তাল হল সোশ্যাল মিডিয়া।

কিছুদিন আগেই নিজের ইন্সটাগ্রামে সালোনি একটি ছবি পোস্ট করেন। সেখানে তাঁর পরনের টি-শার্টে  লেখা ছিল স্ত্রীঅঙ্গের আভিধানিক সংজ্ঞা। শালিনীর মূল বক্তব্য, স্ত্রী অঙ্গও আর পাঁচটা অঙ্গের মতোই স্বাভাবিক শারীরিক অংশ। এই নিয়ে কুণ্ঠিত হওয়ার কোনও কারণ নেই।

এই সেই ইন্সটাগ্রাম পোস্ট

এরপরেই শুরু হয় বিতর্ক। কেউ মন্তব্য করেন, আমার এমন সন্তান থাকলে আমি অস্বস্তিতে পড়তাম, কেউ বা লেখেন— সালোনি নির্লজ্জ। পুরুষরা তো বটেই, এমনকী মহিলারাও এক হাত নিতে থাকেন সালোনিকে। কেউ কেউ আবার পুরুষাঙ্গের আভিধানিক অর্থও জুড়ে দেন কমেন্টে।

একটি জাতীয় সংবাদমাধ্যমকে সালোনি এই প্রসঙ্গে বলেন, ‘‘অনেক মহিলাই বিশ্বাস করেন, তাদের সম্ভ্রম গর্ব লুকিয়ে রয়েছে তাদের শরীরের নানা প্রত্যঙ্গে। এটি অত্যন্ত লজ্জাজনক। এই মহিলারা পুরুষের জন্ম দেবেন। সেই পুরুষরাই মহিলাদের অসম্মান করবেন, যেমন তাদের মায়েরা আজ করছেন।’’

বলাই বাহুল্য, সালোনিকে দমানো মুশকিল। বিতর্কের মাঝেই তিনি আবার ওই পোশাকে তাঁর আর একটি ছবি পোস্ট করেছেন।