অলৌকিক! এই ছাড়া আর কোনও বিশেষণই খুঁজে পাচ্ছেন না ফ্লোরিডার এক হাসপাতালের নিউরোসার্জেন জন আফসার। কারণ, ২০ বছর ধরে অন্ধ থাকার পর আচমকাই দৃষ্টি ফিরে পেয়েছেন ডক্টর আফসারের বছর ৭০-এর রোগিনী মেরি অ্যান ফ্রাঙ্কো।

১৯৯৫ সালে এক গাড়ি দুর্ঘটনায় গুরুতর জখম হয়েছিলেন ফ্লোরিডার বাসিন্দা মেরি অ্যান ফ্রাঙ্কো। শিরদাঁড়ায় এমন চোট পেয়েছিলেন যে তিনি অন্ধ হয়ে যান। কিছু দিন আগে বাড়িতে হাঁটহাঁটির সময় ফ্লোর টাইলসে পা আটকে পিছন দিক করে পড়ে যান ফ্রাঙ্কো। ফের কাঁধের কাছে ‘স্পাইনাল কর্ড’-এ গুরুতর আঘাত পান। এর জন্য কাঁধে অস্ত্রোপচারও করতে হয়। কিন্তু, অস্ত্রোপচারের পর জ্ঞান ফিরতেই ফ্রাঙ্কো বুঝতে পারেন তাঁর চারপাশে থাকা সমস্ত জিনিসই তিনি দেখতে পাচ্ছেন। বেডের পাশে থাকা জানলা দিয়ে গাছপালার নড়াচড়া সবই প্রত্যক্ষ করছিলেন তিনি। বিশ্বাসই হচ্ছিল না তাঁর। এ কেমন করে সম্ভব মনে হচ্ছিল ফ্রাঙ্কোর। কিন্তু, নার্স যখন তাঁকে ওষুধ দিতে এল তখন বুঝতে পারলেন এটা কোনও ‘স্বপ্ন’ বা ‘হ্যালুসিনেশন’ নয় তিনি সত্যিকারেই দৃষ্টি ফিরে পেয়েছেন।

মেরি অ্যান ফ্রাঙ্কোর এমনভাবে দৃষ্টি শক্তি ফিরে পাওয়ার ঘটনায় হইচই পরে যায় হাসপাতালে। ছুটে আসেন ফ্রাঙ্কোর নিউরো সার্জেন জন আফসার। সমস্ত দিক খতিয়ে দেখে তিনি একে ‘অলৌকিক’ ছাড়া আর কিছুই বলতে পারছিলেন না আফসার।

তবে, আফসারের মতে, গাড়ি দুর্ঘটনায় ফ্রাঙ্কোর শিরদাঁড়ার আঘাত কোনওভাবে তাঁর চোখের ধমনীতে রক্ত চলাচল বন্ধ করে দেয়। ফলে দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলেন। কিন্তু, নতুন করে শিরদাঁড়ায় চোট পাওয়া চোখের শীরা ও ধমনীতে ফের রক্তপ্রবাগ শুরু হয়। অস্ত্রোপচারে এই রক্ত প্রবাহ স্বাভাবিক গতি নেওয়ায় ফ্রাঙ্কো তাঁর দৃষ্টিশক্তি ফিরে পেয়েছেন।

তবে, ফ্রাঙ্কোর এমনভাবে দৃষ্টি ফিরে পাওয়াকে বিশ্বজুড়ে অধিকাংশ মানুষও ‘অলৌকিক’ বলেই ব্যাখ্যা করছেন।