মনে পড়ে, ২০০০ সালে জেনিফার লোপেজের সেই বুক চেরা সিল্ক সিফনের ফ্যাশনকে। গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডের মঞ্চে এই পোশাক পরে হাজির হয়েছিলেন লোপেজ। এই পোশাক নিয়ে ঝড় উঠেছিল বিশ্বজুড়ে। পরবর্তীকালে লোপেজের ফ্যাশন নানাভাবে অনুসরণ হয়েছে। এমনকী, বলিউডের হাল-আমলের করিনা, দীপিকারাও লোপেজের দেখানো এমন বুক চেরা পোশাক পরেছেন। 

২০০০ সালে বুক চেরা সেই পোশাক পরে জেনিফার লোপেজ

এরপর বিশ্বের নানা প্রান্তেই পোশাক নিয়ে নানা বিতর্ক হয়েছে। কিন্তু, তার কোনওটাতেই লোপেজের ফ্যাশনের মতো দীর্ঘস্থায়ী হওয়ার গুণ ছিল না।

২০১৪ সালে আইফা অ্যাওয়ার্ডসে করিনা কপূর

২০১৬ সালে আইফা অ্যাওয়ার্ডসে দীপিকা পাড়ুকোন

কিন্তু, হলিউডের হাল আমলের এক তারকা কিন্তু, লোপেজের সেই ফ্যাশন ক্রিয়েশনকে স্মরণ করালেন। ছোট পর্দার হার্টথ্রব কেন্ডাল জেনার সম্প্রতি এমন একটি পোশাক পরে প্রকাশ্যে এসেছেন,তাতে মনে করা হচ্ছে এখান থেকে এক নয়া ফ্যাশনের জন্ম হতে পারে। 

কেন্ডাল জেনার তাঁর টী-শার্ট কাট ফ্যাশনে

কী এই পোশাক? টি-শার্টকে সামনের দিক থেকে কেটে দিয়েছেন কেন্ডাল। ফলে এই টি-শার্ট পরায় অন্তর্বাস প্রতিভাত হচ্ছে। অনেকে একে কেন্ডালের ‘অড ফ্যাশন’ বলে তকমা দিচ্ছেন।’ কিন্তু, কিছু ফ্যাশনদুরস্ত মহিলাদের মতে— ‘নিউ ফ্যাশন, মন্দ কী।’ অনেক নারীবাদীকে সবসময়ে বলতে শোনা যায়, ‘সৌন্দর্যই যদি নারীর পরিচয়, তা হলে সেই সৌন্দর্যকে লুকিয়ে রেখে সমাজে চলাফেরা করার অর্থ কী?’। সেদিক দিয়ে কেন্ডালের এই টি-শার্ট কেটে বক্ষ উন্মোচন করা ফ্যাশন এঁদের নজর টানতেই পারে। 

কেন্ডাল জেনার

হলিউড তারকা অবশ্য আজ পর্যন্ত অভিনয়ের জন্য যত না পরিচিতি পেয়েছেন, তার থেকেও বেশি তাঁর পরিচিতি এসেছে বিতর্কিত সব ফ্যাশনে। বছর ২০-র কেন্ডাল জেনার এই মুহূর্তে হলিউডের মোস্ট হ্যাপেনিং গার্ল। সম্প্রতি হলিউডে কটেজও কিনেছেন তিনি। গ্ল্যামার আর ফ্যাশনের ফরিস্তা হিসাবেই দেখা হচ্ছে কেন্ডালকে। কিছুদিন আগে অন্তর্বাস ছাড়াই বুক চেরা জামা পড়ে চমকে দিয়েছিলেন তিনি।

অন্তর্বাসহীন লো-কাট জামা পরে কেন্ডাল জেনার

সেই পোশাক কেন্ডালপ্রেমীদের চোখকে ছানাবড়া করতেই পারে, তবে, এবার টি-শার্ট সামনে থেকে কেটে যে ফ্যাশনের জন্ম কেন্ডাল দিতে চেয়েছেন, তার আয়ু কতটা হবে তা জানতে এখনও সময় লাগবে।