মুকেশ অম্বানী রিলায়েন্স জিও-কে বাজারে ছাড়ার সময় মোবাইল পরিষেবা দেওয়া অন্য সংস্থাগুলিকে আক্রমণ করেননি। কিন্তু, মুকেশের বাণিজ্যিক কৌশলে কার্যত দিশেহারা হয়েই এবার যেন ময়দানে নেমে পড়লেন ভারতী এয়ারটেলের কর্ণধার সুনীল মিত্তল। ‘রিলায়েন্স জিও’-র ধাক্কায় অন্যরা যে বেসামাল অবস্থায় তা ফের একবার যেন প্রমাণিত হল। 

‘রিলায়েন্স জিও’-কে ঠেকাতে ভারতী এয়ারটেলের কর্ণধার কী বলছেন? বুধবার সুনীল মিত্তল বলেন, ‘সারাজীবনের জন্য ফ্রি অফার চলতে পারে না।’ তাঁর দাবি, এই বিষয়ে অবশ্যই ট্রাইকে হস্তক্ষেপ করতে হবে এবং রিলায়েন্স জিও-র ফ্রি পরিষেবার বিতর্ককে মেটাতে হবে। কোনও কিছুই সারাজীবনের জন্য ফ্রি হতে পারে না।’ সম্প্রতি ট্রাই ‘সাফিসিয়েন্ট পয়েন্টস অফ ইন্টারকানেকশনস’ বা ‘পিওআই’ ইস্যুতে রিলায়েন্স জিও-র পাশে দাঁড়িয়েছে এবং এয়ারটেল-সহ আরও তিন সংস্থাকে এর জন্য আর্থিক জরিমানা করেছে তারও সমালোচনা করেন সুনীল মিত্তল। এয়ারটেলের কর্ণধারের মতে, রিলায়েন্স জিও-র ‘পিওআই’ কানেকশন নিয়ে ট্রাই-এর কিছু ভুল ধারণা রয়েছে। 

২১ অক্টোবর ট্রাই এয়ারটেল, ভোডাফোন এবং আইডিয়া সেলুলারের উপর ৩,০৫০ কোটি টাকার আর্থিক জরিমানা চাপায়। এই তিন সংস্থার বিরুদ্ধে রিলায়েন্স জিও-কে পর্যাপ্ত সংখ্যক ‘পিওআই’ না দেওয়ার অভিযোগ ছিল। এটা ট্রাই-এর নির্দেশিকায় আইনবিরুদ্ধ কাজ। কিন্তু, রিলায়েন্স জিও-র বিরুদ্ধে যেভাবে এবার খোদ সুনীল মিত্তল ময়দানে নেমেছেন তা নজিরবিহীন বলেই মনে করা হচ্ছে। যদিও, রিলায়েন্স জিও এই নিয়ে এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া দেয়নি।

আরও পড়ুন... 

৮ হাজার টাকার মোটো ই৩ পাওয়ার ফোন মাত্র ৪৯৯টাকায়! 

মার্চ পর্যন্ত বাড়ছে জিও-র ফ্রি কল এবং ডেটা সার্ভিস?