তিনি যতটা ভেবেছিলেন, মেয়ে নাকি তার চেয়ে অনেক বেশি সাফল্য অর্জন করে ফেলেছে। এবার মহেশ ভট্ট চান, ব্যর্থতার স্বাদটাও টের পান আলিয়া ভট্ট! ‘স্টুডেন্ট অফ দ্য ইয়ার’ দিয়ে কেরিয়ার শুরু করেছিলেন আলিয়া। তারপর ‘হাইওয়ে’ থেকে ‘উড়তা পঞ্জাব’— প্রায় সব ছবিতেই তারিফ কুড়িয়েছেন। শুধু ‘শানদার’ হিট করেনি। মহেশের বয়ান, ‘‘এবার ব্যর্থতার সঙ্গেও পরিচয় হওয়া দরকার আলিয়ার।’’ তবে ‘উড়তা পঞ্জাব’এ মেয়ের অভিনয় দেখে যে তিনি মুগ্ধ, সে কথাও জানাতে ভোলেননি। নিজের কাজের ব্যাপারে আলিয়া যে সিদ্ধান্তই নিন, তিনি মেয়ের পাশে থাকবেন বলেই জানিয়েছেন।