১৫ বছরের কাইল্যান্ড ক্লার্ক এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে হাসপাতালে ভর্তি। একটি ভয়ঙ্কর কাজ করতে গিয়ে সে পুড়িয়েছে নিজের মুখ। বন্ধুর সঙ্গে মজা করে বলেছিল, ‘হট ওয়াটার চ্যালেঞ্জ’ খেললে কেমন হয়।

যেমন ভাবা তেমন কাজ। কাইল্যান্ড যখন ঘুমাচ্ছিল তখন তার বন্ধু এসে ফুটন্ত জল মুখের উপর ফেলে দিয়েছিল।

‘‘আমার ত্বক তো খুলে পড়ে যাচ্ছিল। আয়নায় নিজের মুখ দেখে চমকে উঠেছিলাম,’’ বলছেন কাইল্যান্ড। তার পুড়ে যাওয়ার ক্ষত ছিল দ্বিতীয় ডিগ্রির। যাতে জ্বালা করে ও ত্বকের উপর ফোসকা পড়ে যায়।  

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

শুধু কাইল্যান্ডই নয়, আমেরিকার আরও কয়েকজনও এই ভয়ঙ্কর চ্যালেঞ্জের খেলা খেলতে গিয়ে হাসপাতালে ঠাঁই নিয়েছেন। একজন মারা গিয়েছেন বলেও আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ‘টাইম’-এর খবর।

২০১৭ সালের জুলাইতে একটি ৮ ব‌‌‌‌‌‌‌‌ছরের বাচ্চা মারা যায় যখন তার ভাই তাকে ফুটন্ত জল খাওয়ার চ্যালেঞ্জ ছুড়েছিল। তার গলা পুড়ে যায়। সে বধির হয়ে যায়। পরে সে মারা যায়। 

‘হট ওয়াটার চ্যালেঞ্জ’ আসলে কী? এই খেলায় কারোর উপরে ফুটন্ত জল ফেলে দিতে হয় বা স্ট্র দিয়ে ফুটন্ত জল খেতে হয়। এই থেলা খুবই ভয়ঙ্কর। সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে না গেলে বিপদ ঘটতে পারে।

গত এক বছর ধরে চলছে এই চ্যালেঞ্জ। মূলত ইন্টারনেটেই এই চ্যালেঞ্জের ভিডিও তোলা হচ্ছে।