এমনিতেই দেরি হয়েছে শ্যুটিং শুরু করতে, তার উপর কাল রাতের মর্মান্তিক দুর্ঘটনা হতবাক করেছে অনুষ্কা শর্মাকে।

তিনি এই ছবির নায়িকা ও প্রযোজক।
শটে তখন ছিলেন পরমব্রত ও অনুষ্কা নিজে। হঠাৎই আলোর উজ্জ্বলতা বাড়ানোর প্রয়োজন হয়। তৎক্ষণাৎ ছুটে যান এই তরুণ টেকনিশিয়ান সাহেব আলম। তিনি মুম্বই থেকেই এসেছেন।
হঠাৎ আর্তচিৎকার আর তার পরেই নিথর হয়ে যায় প্রাণবন্ত এত তরুণের দেহ। উত্তরপ্রদেশের এক প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে আসা এই তরুণের মুম্বই ড্রিমসে ছেদ পড়ে এখানেই।
দৃশ্য দেখে হাউ হাউ করে কেঁদে ফেলেন অনুষ্কা। স্থির থাকতে পারেননি। নিজের উদ্যোগে তাঁকে রাজারহাটের হাসপাতালে নিয়ে গেলে, হাসপাতালের তরফে তাঁকে মৃত ঘোষণা করা হয়। 

আজ ভোর থেকে শ্যুট শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আজকের শ্যুট পুরোপুরি বাতিল করে অনুষ্কা সাহেবের পরিবারকে কলকাতায়  নিয়ে আসার প্রস্তাব দেন। কিন্তু গ্রাম থেকে তাঁর অসুস্থ বৃদ্ধা মাকে নিয়ে আসা সম্ভব নয়। তাই আজ ফ্লাইটে করে তাঁর দেহ পাঠানো হবে মুম্বইয়ে। গ্রাম পঞ্চায়েতের কাছ থেকে সেই সম্পর্কিত চিঠিও এসে পৌঁছেছে।
অনুষ্কা শর্মার তরফ থেকে ক্ষতিপূরণও দেওয়া হবে সেই পরিবারকে।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

এসকে মুভিজের তরফ থেকে বিপ্লব দাস রায় জানিয়েছেন যে, বুধবার বিকেলে আলোচনা করে স্থির করা হবে পরবর্তী শ্যুটিং শেডিউল। 
আজ মুম্বই ফিরে যাওয়া আপাতত স্থগিত। অগস্ট ৩১ তারিখ পর্যন্ত চলবে শ্যুটিং। তার পর ১৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত শ্যুটিং চলার সম্ভাবনা।

‘পরি’-র জীবনে এমন অভিশাপ নেমে আসবে ভাবতেই পারেননি অনুষ্কা!