চেন্নাই সুপার কিংস, রাজস্থান রয়্যালস— জোড়া ফ্র্যাঞ্চাইজি স্পট ফিক্সিংয়ের নির্বাসন কাটিয়ে ফের আইপিএল দুনিয়ায় প্রত্যাবর্তন করেছে। সিএসকে তো ট্রফি-ই জিতে নিয়েছে! কিন্তু এবার স্পট ফিক্সিং কাণ্ডে সন্দেহ তৈরি হল গুজরাত লায়ন্সকে নিয়েও। চেন্নাই ও রাজস্থান নির্বাসনে থাকাকালীন দু’বছর আইপিএল-এ খেলেছিল গুজরাত ও পুণে।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

চেন্নাই, রাজস্থান আইপিএল দুনিয়ায় প্রত্যাবর্তন করলেও গুজরাত ও পুণের সেই সুযোগ নেই। আইপিএল কক্ষপথের বাইরে আপাতত গুজরাত থাকলেও তাদের নিয়েই প্রবল আলোচনা। 

সম্প্রতি বলিউড অভিনেতা আরবাজ খান ক্রিকেট বেটিংয়ের কথা স্বীকার করে নিয়েছেন। পুলিশি জেরায় তিনি জানিয়েছিলেন, গত ছ’বছর ধরেই তিনি নাকি বেটিংয়ে সক্রিয় ভাবে অংশ নিচ্ছেন। সদ্য শেষ হওয়া আইপিএল-এ তিনি ২ কোটি ৭৫ লক্ষ টাকা খুইয়েছেন। 

এই সেই ছবি। এই ছবি নিয়েই জল্পনা তুঙ্গে। ছবি— বনশলের ফেসবুক পেজ থেকে 

আরবাজের নাম গড়াপেটার শিরোনামে আসতেই সেই বিতর্কে উঠে এল গুজরাত লায়ন্সের নামও। আরবাজের বেশ ঘনিষ্ঠ গুজরাত লায়ন্সের মালিক যশবন্ত কেশব বনশল। আইপিএল দুনিয়ার সবথেকে তরুণ মালিক তিনি-ই ছিলেন। 

তাঁর সঙ্গে আরবাজ খান ভিআইপি বক্সে বসে খেলা দেখছেন— এমনই এক ছবি সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যাওয়াতেই ছড়িয়েছে সন্দেহ। সেই বিশেষ ম্যাচে গুজরাতের প্রতিপক্ষ ছিল কেকেআর। আরবাজ ও তাঁর নিজের ছবি পোস্টও করেছেন বনশল। সেই ছবির সূত্র ধরেই হঠাৎই জল্পনা তৈরি হয়েছে ক্রিকেটমহলে। 

চেন্নাই সুপার কিংস নির্বাসনে চলে যাওয়ার পরে তারকাখচিত দল বানিয়েছিল গুজরাত লায়ন্স। সুরেশ রায়নাকে নেতা বেছে ডোয়েন ব্র্যাভো, ব্রেন্ডন ম্যাকালাম, রবীন্দ্র জাদেজার মতো তারকাদেরও স্কোয়াডে রাখা হয়েছিল। ২০১৬ সালে প্লে অফে পৌঁছনোর পরে ২০১৭ সালে সপ্তম স্থানে শেষ করেছিল গুজরাত। 

ক্রিকেট-বেটিংয়ে আরবাজের জড়িত থাকা এবং তার পরেই বনশলের সঙ্গে সলমন খানের ভাইয়ের ছবি নিয়ে তৈরি হয়েছে প্রবল আলোড়ন। ক্রিকেট দুনিয়াতেও আশঙ্কা। ক্রিকেট বেটিং নিয়ে তদন্ত এখনও চলছে। 

তবে আরবাজের বেটিং-এর সঙ্গে বনশল বা তাঁর দলের কোনও সম্পর্ক রয়েছে কিনা তা এখনও স্পষ্ট নয়। তবে পুলিশের কাছে আরবাজ কয়েকজনের নাম করেছেন বলেই ঠানে পুলিশ সূত্রে খবর। 

তবে এখনও পর্যন্ত এই ‘সন্দেহ’ নিয়ে কেশব বনশল বা গুজরাত লায়ন্স কর্তৃপক্ষের কোনও বক্তব্য পাওয়া যায় নি।