গত দুই শতক ধরেই উত্তর মেরুর বরফ গলছে। কিন্তু ১৯৭০ সালের পর থেকে তা বৃদ্ধি পেয়েছে বেশ কয়েক গুণ, জানিয়েছেন বৈজ্ঞানিকরা। এবং গত সপ্তাহেই এই খবর প্রকাশিত হয়েছে গোয়ার ‘ন্যাশনাল সেন্টার ফর অ্যান্টার্কটিক অ্যান্ড ওশান রিসার্চ’ (এনসিএওআর)-এর জার্নালে।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

গবেষকদের মতে, উত্তর মেরুর বরফ এত দ্রুত গলে যাওয়ার ফলে তার প্রভাব পড়বে ভারতের মৌসুমি বায়ুর উপরেও, বিশেষ করে দক্ষিণ-পশ্চিমের বর্ষায়। কারণ, দেশের এদিকের বর্ষা অনেকাংশেই নির্ভর করে মেরু অঞ্চলের বরফের উপর।

সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, এনসিএওআর-এর গবেষকরা আরও জানিয়েছেন যে, বিশ্ব উষ্ণায়ন ও বর্ষার মধ্যে রয়েছে সরাসরি যোগসূত্র। মেরু অঞ্চলের বরফ হলে যাওয়ার ফলে সমুদ্র ও স্থলভাগের তাপমাত্রায় যথেষ্ট প্রভাব পড়েছে। যার ফলে বর্ষণও বেড়ে গিয়েছে ভারতে। 

সেদিক থেকে দেখতে গেলে, ভারতের দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলের কেরলে যে বন্যা হয়ে গেল, তার মূল কারণই ছিল অতিবর্ষণ। 

বিশ্ব উষ্ণায়ন নিয়ে আলাপ-আলোচনা চলছে বিগত কয়েক বছর ধরেই। কিন্তু মানুষ এখনও সচেতন হয়নি। অথবা হয়েছে। তবে সচেতন হতে হবে আরও অনেক বেশি।