শূকরছানাও নাকি ছবি আঁকে! আশ্চর্য হলেন তো! হওয়ারই কথা।

তার বয়স তখন মাত্র চার সপ্তাহ। দক্ষিণ আফ্রিকার একটি কসাইখানায় অত্যন্ত অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে থেকে উদ্ধার করে তাকে আনা হয় কেপ টাউনের ‘ফার্ম স্যাঙ্কচুয়ারি এস এ’-তে। 

চার সপ্তাহের ছোট্ট ছানাটিকে জোয়ান লেফসন উদ্ধার করে আনেন মৃত্যুর হাত থেকে। এবং তিনিই প্রথম বুঝতে পারেন তার লুকনো প্রতিভার কথা। সাদা ক্যানভাস পেলেই নানা রঙে তা ভরিয়ে দিতে শুরু করে ছোট্ট শূকরছানাটি। এবং আঁকার এই প্রতিভার জন্যই তার নাম হয় ‘পিগকাসো’।


(ছবি: পিগকাসো-র ফেসবুক পেজ থেকে)

পাবলো পিকাসো ছিলেন বিংশ শতকের স্বনামধন্য এক চিত্রকর। তাঁর আরও গুণ ছিল। কিন্তু, ওই রং-তুলি নিয়ে খেলার কারণেই, এই মহান শিল্পীর নামানুসারে শূকরছানাটির নাম হয় পিগকাসো। প্রসঙ্গত, তার ফেসবুক পেজও রয়েছে (https://www.facebook.com/pigcasso/?ref=search)।

এবং তার এই নাম সার্থক করেছে পিগকাসো। তার আঁকা ছবি বিক্রি হয় ৩০০০ পাউন্ডে, ভারতীয় অর্থে যা প্রায় ২ লাখ ৬৬ হাজার টাকা। সাদা ক্যানভাস রাখাই থাকে পিগকাসোর ফার্মে। সামনে রাখা থাকে নানা রঙের তুলি। খেলতে খেলতেই সেই তুলির আঁচড় কাটে শিল্পী। এবং ভিড় করে দেখেন তা দর্শক। 

‘অ্যাবস্ট্রাক্ট আর্ট’ এঁকেই সকলের মন জয় করেছে পিগকাসো। এবং সম্প্রতি তার ছবিগুলি নিয়ে একটি প্রদর্শনীও হয়ে গেল কেপ টাউনে। ‘অয়েইঙ্ক’ (বাংলায় সম্ভবত ‘ঘোঁৎ’) নামে ওই প্রদর্শনী এর পরে আয়োজিত হবে লন্ডন, প্যারিস, বার্লিন ও আমস্টারডামে। 

প্রসঙ্গত, পিগকাসো বিশ্বের প্রথম পশু যার আঁকা ছবির এমন প্রদর্শনী হল। 


(ভিডিও: পিগকাসো-র ফেসবুক পেজ থেকে)