গরু মারার জন্যই কেরলে বন্যা হয়েছে। এমনই ভয়ঙ্কর দাবি করলেন প্রতিবেশী রাজ্য কর্ণাটকের বিজেপি বিধায়ক। বসনাগৌডা পাতিল যাতনাল তো একই সঙ্গে এমনই দাবি করেছেন যে, হিন্দু ভাবাবেগে আঘাত করার ফল ভুগতে হচ্ছে কেরলকে।

প্রায় ৩০০ জন মানুষ কেরল বন্যায় মারা গিয়েছেন ও লক্ষাধিক মানুষ গৃহহীন হয়েছেন এই প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে।

প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী যাতনাল এই প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সঙ্গে গোহত্যাকে জুড়ে দিলেন।

‘‘গোহত্যা করা হিন্দু সমাজের ভাবনার বিরুদ্ধে। এক ধর্মের মানুষদের অন্য ধর্মের মানুষের ভাবাবেগে আঘাত করা উচিত নয়। এখন দেখুন, কেরলে কী হল! ওরা প্রকাশ্যে গরু হত্যা করে। আর দেখুন, এক বছরের কম সময়ের মধ্যে এই অবস্থায় এসে গেল ওরা’’— বলেন যাতনাল।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

‘‘যাঁরা হিন্দু সমাজের ভাবনাকে আঘাত করবে, তাঁদেরই এমন শাস্তি হবে,’’ যোগ করেন এই বিজেপি বিধায়ক।

বছর খানেক আগে কেরলে বিধানসভার ক্যান্টিনে বিধায়কদের একটি গোমাংস উৎসবের প্রসঙ্গ টেনে এমন দাবি করেন যাতনাল। সেই সময় কেন্দ্রীয় সরকার পশু হত্যা ও তার বাণিজ্য নিয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল।

দক্ষিণী রাজনীতিতে এমনিতেই বিতর্কিত চরিত্র বসনাগৌডা পাতিল যাতনাল। গত মাসেই তিনি বলেছিলেন যে, তিনি যদি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হতেন তা হলে বুদ্ধিজীবীদের গুলি করে মেরে ফেলতেন। কারণ এঁরা ‘বিপজ্জনক’। 

গত জুনে তিনি দলের একটি সভায় বলেছিলেন, ‘‘বিজেপির মুসলমানদের উন্নয়নের জন্য কাজ করা উচিত নয়। কারণ মুসলমানরা বিজেপিকে ভোট দেননি।’’

কয়েক বছর আগে বিজেপি ছেড়ে দিলেও, যাতনাল কর্ণাটক বিধানসভা ভোটের আগে দলে ফিরে আসেন।