দু’টি বিছানার মধ্যে অন্তত দু’ফুটের দূরত্ব রাখতে হবে। মেয়েদের হস্টেলের জন্য এমনই অবাক নির্দেশিকা জারি করল পাকিস্তানের একটি নামদাজা বিশ্ববিদ্যালয়। শুধু তাই নয়, নির্দেশিকা অমান্য করলে কড়া শাস্তি পেতে হবে বলেও সতর্ক করা হয়েছে ছাত্রীদের।

ইসলামাবাদের ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি-র অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর এই নির্দেশিকা জারি করেছেন। সংবাদসংস্থাকে উদ্ধৃত করে একটি সর্বভারতীয় হিন্দি দৈনিকের খবর অনুযায়ী, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নির্দেশিকায় বলেছে, কোনও ছাত্রীকে যদি তাঁর বান্ধবী বা বোনের সঙ্গে একই বিছানায় শুয়ে থাকতে দেখা যায়, তাহলে তাঁদেরকে মোটা জরিমানা দিতে হবে। একই চাদর বা কম্বল দু’জনে গায়ে দিয়ে শোয়া অথবা একই বিছানায় দু’জন মেয়ে বসলেও তাকে ‘বেড শেয়ারিং’ বলেই গণ্য করা হবে। 

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দাবি, কিছু ছাত্রী নিজেদের নামে নথিভুক্ত বিছানায় নিজেদের আত্মীয় অথবা বন্ধুদের শুতে দিচ্ছে। এই বিজ্ঞপ্তির আসল উদ্দেশ্যে বেনামে যাতে কেউ হস্টেলে থাকতে না পারে, তা নিশ্চিত করা। কিন্তু যেভাবে লিঙ্গবৈষম্যমূলক ভাষা ব্যবহার করে শুধুমাত্র ছাত্রীদের হোস্টেলের জন্য এই নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে, তা নিয়েই পাকিস্তানের সোশ্যাল মিডিয়ায় জোর হইচই শুরু হয়েছে। কারণ, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের হস্টেলে একই ধরনের অভিযোগ উঠলেও শুধুমাত্র ছাত্রীদের হস্টেলের জন্য এই নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে।