বৃহস্পতিবারই তথ্য প্রকশিত হয়েছে যে, ২০১৭ সালে সুইস ব্যাঙ্কে ভারতীয় মুদ্রার পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে আশ্চর্যজনক ভাবে। ২০১৬ সালে নোট বাতিলের পরে যে সংখ্যাটি ছিল ৪৫০০ টাকা, তা এক লাফে বেড়েছে প্রায় ৫০ শতাংশ। বর্তমানে সেই সংখ্যা পৌঁছেছে ৬,৮৯১ কোটি টাকায়।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, সুইস ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক (এসএনবি)-এর তরফ থেকেই এই তথ্য জানানো হয়। 

মোদী সরকার টাকার কালোবাজারি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য যে পন্থা নিয়েছিল, এখন তা নিয়েই প্রশ্ন জেগেছে সাধারণের মনে— ১০০০ ও ৫০০ টাকার নোট বাতিল করে যে কালো টাকা রোধ করতে চেয়েছিল সরকার, তা কি আদৌ সম্ভব হয়েছে?

এসএনবি-এর তথ্য প্রকাশের পরেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গোয়েল সাংবাদিকদের জানিয়েছেন যে, কালো টাকা সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য ২০১৮-১৯ আর্থিক বর্ষের মধ্যেই পেয়ে যাবে কেন্দ্রীয় সরকার। এবং দোষীদের শাস্তি দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি। 

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত, ভারত সংক্রান্ত সমস্ত তথ্যই সুইস ব্যাঙ্ক দিয়ে দেবে মোদী সরকারকে। এমনই এক চুক্তি হয়েছে ভারত ও সুইৎজারল্যান্ডের মধ্যে।