দেশের সব বড় শহরেই তেলের দাম বৃদ্ধি পেয়ে চলেছে। শনিবারের পর রবিবার চার মেট্রো শহরে প্রতি লিটার পেট্রলের দাম ১১ পয়সা থেকে ১৮ পয়সা বৃদ্ধি হয়েছে৷ ডিজেলের দাম বেড়েছে লিটার পিছু ৩৪ পয়সা৷

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

রবিবার দিল্লিতে সকাল থেকে লিটার প্রতি পেট্রল দাম বেড়ে হয় ৭৮.৮৪ পয়সা৷ মুম্বইতে এই দাম বেড়ে হয় ৮৬.২৫ পয়সা৷ অন্য দিকে, কলকাতায় পেট্রলের দাম লিটার প্রতি ১১ পয়সা বেড়ে হয়েছে ৮১.৪৯ পয়সা৷ চেন্নাইতে লিটার প্রতি পেট্রলের দাম ১৮ পয়সা বেড়ে রবিবার হয়েছে ৮১.৬৩ পয়সা৷

একই ভাবে দাম বেড়ে চলেছে ডিজেলেরও৷ দিল্লি, মুম্বই, কলকাতা ও চেন্নাইতে ডিজেলের দাম বেড়ে হয়েছে যথাক্রমে ৭০.৭৬ পয়সা, ৭৫.১২ পয়সা, ৭৩.৬১ পয়সা, ৭৪.৭৮ পয়সা৷ 
গত সপ্তাহ থেকেই উর্ধ্বমুখী তেলের দাম৷ পেট্রল ও ডিজেলের দাম বাড়তে থাকায় কপালে চিন্তার ভাজ মধ্যবিত্তের৷ সেই সঙ্গে ভর্তুকি-হীন রান্নার গ্যাসের দামও বেড়ে হয়েছে ৭৯৫ টাকা৷ চিন্তা বাড়ছে তেলের দাম বাড়ার প্রভাবে বাজারে সব কিছুই অগ্নিমূল্য হয়ে উঠতে পারে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম৷

এহেন পরিস্থিতিতে সকলেই তাকিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের দিকে। কিন্তু কেন্দ্রের বক্তব্য এই সবের জন্যই দায়ি মার্কিন নীতি। কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান জানিয়েছেন, আমেরিকার ‘আইসোলেটেড’ নীতির জন্য আন্তর্জাতিক বাজারে বাড়ছে অসংশোধিত জ্বালানির দাম। মার্কিন নীতির কারণে কমছে টাকার দাম। আর এই সবের জন্যই বাড়ছে পেট্রোলিয়াম পন্যের দাম।’’

আপাতত আন্তর্জাতিক বাজারের দিকে তাকিয়ে সুদিনের অপেক্ষা করা ছাড়া যে কোনও উপায়ই নেই তাও এক রকম স্পষ্ট করে দিয়েছেন মোদীর মন্ত্রী।