এতদিন নিষ্প্রভ ছিলেন। কোচ বদলাতেই ফিরলেন স্বমেজাজে। ‘সেন জমানা’ পতনের পরেই বাগানের ‘সেনসেক্স’ ঊর্ধ্বমুখী। তারপরেই সাংবাদিক সম্মেলনে বিস্ফোরক ডিপান্ডা ডিকা। কোচ সঞ্জয় সেনকে একহাত নিয়ে ডিকা ভরা সাংবাদিক সম্মেলনেই বলে দিলেন, ‘‘নতুন কোচের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। লং বল নয়, পাসিং ফুটবলে জোর দিয়েছেন। এটারই প্রয়োজন ছিল।’’

আইলিগ আর কলকাতা লিগের সর্বোচ্চ স্কোরার ছিলেন। তারপরেই সবুজ মেরুন জার্সিতে এতদিন অদৃশ্য ছিল সেই তেজ। পেনাল্টি সমেত গোলও করেছিলেন চারটি। তবে সমর্থকদের ভরসা জোগাতে পারেননি। শঙ্করলালের হাত ধরেই গোল-খরা মিটল। জুটল ম্যাচ সেরার তকমা। তারপরেই আক্রমণাত্মক অতীত কোচের উদ্দেশে। সাংবাদিক সম্মেলনে যখন নিজের ক্ষোভ উগরে দিচ্ছেন, তখন পাশে বসা কোচ নির্বিকার।

কোচ শঙ্কর বরাবরের মতোই ভাবলেশহীন গলায় আবার বলে চলেছিলেন, ‘‘আমি তেমন কেউ নই। তবে দলের রিমোট কন্ট্রোল যখন আমার হাতে, তখন নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করাটা জরুরি ছিল। আত্মবিশ্বাসে ভর করেই দলকে উদ্দীপ্ত করেছি।’’ সঙ্গে সংযোজন, ‘‘দলের কঠিন সময়ে তিন পয়েন্ট দরকার ছিল।’’

আগের ম্যাচ থেকে হাফডজন পরিবর্তন করে আইজলের বিরুদ্ধে প্রথম একাদশ সাজিয়েছিলেন আইলিগে প্রথমবার কোচিং করানো শঙ্করলাল চক্রবর্তী— অরিজিৎ বাগুই, ক্যামেরন ওয়াটসন, কিংশুক দেবনাথ, রেনিয়ের ফার্নান্ডেজ, দীপেন্দু দুয়ারি এবং নিখিল কদম। ছ’টি পরিবর্তন করে শঙ্করলাল এতদিন নীচ থেকে খেলা ক্রোমাকে ডিকার সঙ্গে আপফ্রন্টে জুড়ে দিয়েছিলেন।

আইজলের দুই স্টপার আফগানিস্তানের মাসি সাইঘানি এবং মহামেডানে খেলে যাওয়া নাইজেরীয় করিম ওমোলোজা— দু’জনেই ছ’ফুটের উপর লম্বা। তাই সঞ্জয় জমানার লং বল নয়, ছোট ছোট পাসে ফুটবলারদের খেলার নির্দেশ দিয়েছিলেন বরাহনগরের শঙ্কর।

এতেই ফুল ফুটল ‘সঞ্জয়হীন’ বাগানে। এল তিন পয়েন্টের অক্সিজেন। বল পজিশনে বিপক্ষকে টেক্কা দেওয়া হোক বা মাঝমাঠের দখল— আত্মবিশ্বাসহীন বাগান যেন স্বমহিমায় অবতীর্ণ রবিবারের যুবভারতীতে।

ডিকা গোলে ফিরলেও ক্রোমা তেকাঠিতে বল রাখতে পারলেন না। অতীত-জমানায় তাঁকে স্কিমারের ভূমিকায় খেলানো হচ্ছিল বলে আগেই ক্ষোভ ঝরেছিল, তাঁর গলায়। তবে ডিকার সঙ্গে জুটি বেঁধেও গোল পেলেন না। পোস্টে লেগে ফিরল তাঁর এক শট। শঙ্কর অবশ্য বলে দিচ্ছেন, ‘‘হয়নি। পরের ম্যাচে হবে।’’

টানা চার ম্যাচ পরে জয়ে ফিরে মোহনবাগান যেন কোমা থেকে জেনারেল বেডে। ‘সংক্রামক ড্র’-এর ব্যাধি থেকে বেরিয়ে মোহনবাগান যে ফের নতুনভাবে দৌড় শুরু করল, তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই।