বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেওয়ার রাতে সাংবাদিক বৈঠকে মহেন্দ্র সিংহ ধোনি রীতিমতো শোরগোল ফেলে দিলেন।

সৌজন্যে এক অস্ট্রেলীয় সাংবাদিকের প্রশ্ন। টুর্নামেন্ট থেকে ভারত বিদায় নেওয়ার পর যিনি ধোনির কাছে জানতে চেয়েছিলেন, খেলা চালিয়ে যেতে তিনি আগ্রহী কি না। সম্প্রতি অবসর নিয়ে প্রশ্ন করায় বেশ কয়েকবার ক্ষোভ উগরে দিয়েছিলেন ধোনি। কিন্তু বৃহস্পতিবার সেই খোঁচায় তিনি যেন সেই ‘ক্যাপ্টেন কুল’। প্রশ্নকর্তাকে যিনি নিজের পাশে ডেকে এনে বসালেন। ক্যামেরার সামনেই তাঁর কাঁধে হাত রেখে জিজ্ঞেস করলেন, ‘‘আপনি কি চান আমি অবসর নিই?’’ অপ্রস্তুত অবস্থায় সাংবাদিক তাঁকে বোঝানোর চেষ্টা করেন যে, তাঁর সেরকম কোনও অভিপ্রায় ছিল না। ধোনি বলে চলেন, ‘‘আমার মনে হয়েছিল কোনও ভারতীয় সাংবাদিক প্রশ্নটা করেছেন। কারণ আপনাকে আমি জিজ্ঞেস করতে পারব না আপনার ছেলে বা ভাই উইকেটকিপার কি না।’’ ধোনির পাল্টা প্রশ্ন, ‘‘মাঠে আমার দৌড় দেখে কি আমাকে আনফিট মনে হয়?’’ অস্ট্রেলীয় সাংবাদিক উত্তর দেন, ‘‘না, আপনি খুবই দ্রুত দৌড়ন।’’ ধোনির পরের বাউন্সার, ‘‘আপনার কি মনে হয় আমি ২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত চালিয়ে যেতে পারব?’’ সাংবাদিকের জবাব, ‘‘হ্যাঁ, নিশ্চয়ই।’’ সঙ্গে সঙ্গে হেসে উঠে ধোনি বলে দেন, ‘‘আপনার উত্তর পেয়ে গিয়েছেন।’’

ধোনির কাণ্ডকারখানা দেখার পর অনেকেই মনে করছেন যে, এখনই ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর পথে হাঁটছেন না তিনি। বরং খেলতে চান পরের ওয়ান ডে বিশ্বকাপেও। যে ইঙ্গিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে বিদায়ের রাতেই দিয়ে রাখলেন ধোনি। রাতের দিকে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং ওয়েবসাইটে ধোনির সাংবাদিক বৈঠকের ভিডিও ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।

১৯২ রান করে ম্যাচ হারতে হলেও ধোনি অবশ্য বোলারদের পাশেই দাঁড়িয়েছেন। বলেছেন, ‘‘দু’টো নো বল ছাড়া বোলাররা যথেষ্ট ভাল বোলিং করেছে। তবে নো বলগুলো নিয়ে আমি হতাশ।’’ সেই সঙ্গে ধোনি আরও বলেছেন, ‘‘টস হারাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ হয়ে গিয়েছে। শিশিরের জন্য স্পিনাররা খুব একটা সাহায্য পায়নি।’’