ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো প্রেসিডেন্ট হতে পারেন পর্তুগালের! এমনই রসিকতা করে বিতর্ক ডেকে আনলেন স্বয়ং মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তা নিয়েই বিশ্বকাপের মাঝেই আন্তর্জাতিক রাজনীতি সরগরম।

আসলে রাশিয়ায় বিশ্বকাপ চলার মধ্যেই পর্তুগালের প্রেসিডেন্ট মার্সেলো রেবেলো দ্য সৌজা এসেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। সেখানেই সাধারণ সাক্ষাৎ হওয়ার কথা ছিল দুই রাষ্ট্রনেতার। সেখানেই খোঁচা দিয়ে প্রথমে পর্তুগিজ প্রেসিডেন্ট জানিয়েছিলেন, ‘‘আসন্ন সম্মেলনে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে জানাবেন, পর্তুগাল এখনও বিশ্বকাপে রয়েছে। এবং বিশ্বকাপ জেতার ভালই সম্ভবনা রয়েছে।’’

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

পাশাপাশি ট্রাম্পকে ব্যঙ্গ করে রেবেলো দ্য সৌজা জানান, ‘‘এটা বলতেও ভুলো না যে পর্তুগালের কাছেই বিশ্বের সেরা ফুটবলার রয়েছে— ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো।’’

রেবোলোকে একহাত নিতে ছাড়েননি ট্রাম্পও। তিনি তাঁর কথায় সহমত হয়ে বলেন, ‘‘রোনাল্ডো বিশ্বের সেরা ফুটবলার। তবে ক্রিশ্চিয়ানো কি তোমার বিরুদ্ধে নির্বাচনে লড়তে পারে?’’ এতে প্রথমে কিছুটা অস্বস্তিতে পড়ে যান পর্তুগালের প্রেসিডেন্ট। 
এরপরে কিছুটা ক্ষিপ্ত হয়ে ট্রাম্পকে বিঁধে বলেন, ‘‘আমাদের দেশটা আপনাদের মতো নয়, এখানে সবাই ভোটে জেতেন না। পর্তুগাল মোটেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মতো নয়। এটা কিছুটা আলাদা।’’

প্রি কোয়ার্টার ফাইনালে রোনাল্ডোদের পরের ম্যাচ উরুগুয়ের বিরুদ্ধে। তার আগে চূড়ান্ত প্রস্তুতিতে ব্যস্ত থাকা রোনাল্ডোর কানে কি গেল দু’ রাষ্ট্রনেতার কথোপকথন?