ভেঙে পড়া মাঝেরহাট ব্রিজের ‘ম্যাপ’ তৈরির কাজে হাত দিল রাজ্য ফরেন্সিক ল্যাবরেটরির বিশেষজ্ঞেরা। বুধবার ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর ওই কাজ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞদের একাংশ। ঘটনাস্থল থেকে নমুনা সংগ্রহ করে তা পরীক্ষারকাজও শুরু হয়েছে।

দার্জিলিং থেকে ফিরে এদিন সন্ধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মাঝেরহাট সেতুর দুর্ঘটনাস্থলে যান। সেখানে দাঁড়িয়ে তিনি জানিয়ে দেন সেতুটি পুরনো হওয়ায় কোনও ম্যাপ, কাগজপত্র খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

এদিন সকালে ঘটনাস্থলে যায় চার সদস্যের ফরেন্সিক প্রতিনিধি দল। বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ভেঙে পড়া ব্রিজের ছবি তোলেন তাঁরা। স্কেচ করেন ব্রিজের দাঁড়িয়ে থাকা অংশের। এক প্রতিনিধি জানান, ল্যাবরেটরিতে এবার সেই ছবি মেলানোর কাজ হবে। সেখানে বিশেষ প্রযুক্তির মাধ্যমে ব্রিজের নকশা বা ম্যাপ তৈরি করা হবে যতটা সম্ভব ততটা নিখুঁত করে। ভেঙে পড়া অংশটির কাল্পনিক চিত্রও তৈরি হবে। এটা তদন্তের কাজে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে।

ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞ ওয়াসিম রাজা বলেন, ‘‘এখন প্রতিদিনই আসব। ম্যাপ তৈরির কাজ চলছে।’’ যে অংশ দাঁড়িয়ে আছে এদিন তার ‘ড্রইং’ হয়। বিজ্ঞানের ভাষায় এ ধরনের ‘ড্রইং’কে ‘পোস্ট ডেস্ট্রাকশন ড্রইং’ বলে। অর্থাৎ ব্রিজ ভেঙে যাওয়ার পরে তার চিত্রায়ন।

একইসঙ্গে সংগৃহীত নমুনা পরীক্ষা করে দেখা হবে তার ধারণ ক্ষমতা কেমন ছিল। রাসায়নিক বিশ্লেষণএর কাজ শুরু হয়েছে। ঘটনাস্থলের প্রায় ২০টি জায়গা থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে বলে ফরেন্সিক সূত্রের খবর। মূল দুর্ঘটনার জায়গায় উদ্ধার কাজ চলার কারণে সেখানকার পরিদর্শন বাকি রয়েছে বলে জানিয়েছেন এক প্রতিনিধি।