ইন্টারনেট পরিষেবায় বড় বদল আনতে চলেছে কেন্দ্র। ডিজিটাল ইন্ডিয়ার স্বপ্নকে এক ধাপ এগিয়ে দিতে এবার চারগুণ বাড়তে চলেছে নেটের স্পিড। টেলিকম নেটওয়ার্ক এবং সমস্ত ব্রডব্যান্ড পরিষেবার ক্ষেত্রেই নূন্যতম ইন্টারনেট স্পিড ৫১২ কেবিপিএস থেকে বেড়ে ২ এমবিপিএস হতে চলেছে। 

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে টেলিকম সচিব অরুণা সুন্দরারাজন জানিয়েছেন, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে কম ইন্টারনেট স্পিডের জন্য মানুষকে যে সমস্যায় পড়তে হয়, তার সমাধানেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

থ্রিজি এবং ফোর-জি ইন্টারনেট পরিষেবার ক্ষেত্রে টেলিকম সংস্থাগুলি যে স্পিডের প্রতিশ্রুতি বিজ্ঞাপনে দিয়ে থাকে, তার অধিকাংশই মেলে না। ৫জি আসার পর এই সমস্যা আরও জটিল হবে বলেই মনে করছে ওয়াকিবহালমহল। তাই এখন থেকই পদক্ষেপ না করলে ভবিষ্যতে গ্রাহকরা আরও সমস্যায় পড়বে বলে জানান অরুণা সুন্দরারাজন।

তিনি আরও জানান, যত দিন যাচ্ছে, ভারতে ডিজিটাল ইকোনমির প্রাধান্য বাড়ছে। স্মার্টসিটি গড়ে উঠছে। এই অবস্থায় নেটের স্পিড বাড়ানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কোনওমতেই যাতে ২ এমবিপিএস-এর নীচে স্পিড না নামে, তার চেষ্টা করা হবে।

সম্প্রতি ১৮৯ টি ইন্টারনেট ব্যবহারকারী দেশের মধ্যে সমীক্ষা চালিয়ে দেখা গিয়েছে, স্পিডের বিচারে ভারতের স্থান ১১৯ নম্বরে। একটি নির্দিষ্ট সাইজের কোনও ফাইল ডাউনলোড হতে সিঙ্গাপুরে যেখানে ১৮ মিনিট ৩৪ সেকেন্ড সময় লাগে, তাইওয়ান এবং সুইডেনে প্রায় ৩০ মিনিট লাগে, সেই একই সাইজের ফাইল ভারতে‌ ডাউনলোড হতে প্রায় ৮ ঘণ্টা ১৬ মিনিট লেগে যায়।