‘সব ধর্মের মানুষই সমান সম্মান পাওয়ার অধিকারী— শিখ ধর্ম আমাদের এই বিশ্বাসই শেখায়’, এক সর্বভারতীয় দৈনিককে এমন কথাই জানিয়েছেন সুরেন্দর কান্ধারি। দুবাইয়ের ‘গুরু নানক দরবার’ গুরুদ্বারের চেয়ারম্যান তিনি। 

এবং এই গুরুদ্বারই এবার জায়গা করে নিল গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ড-এ। 

গত বৃহস্পতিবার, এই গুরুদ্বারেই আয়োজন করা হয়েছিল এক অভিনব অনুষ্ঠানের। সে দেশের বহুল প্রচারিত দৈনিক ‘খালিজ টাইমস’-এর খবর অনুযায়ী, সেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সাধারণ মানুষ থেকে রাজনৈতিক নেতা-আমলারাও। স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের পাশাপাশি সেখানে দেখা গিয়েছিল সংযুক্ত আমির শাহির ভারতীয় রাষ্ট্রদূত, নভদীপ সিংহ সুরিকেও। তিনিই ছিলেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি।

গুরুদ্বারের পাশেই জেবেল আলি গার্ডেন-এ অস্থায়ী তাঁবু খাটিয়ে আয়োজন করা হয়েছিল এক ম্যারাথন ব্রেকফাস্ট-এর। অনুষ্ঠানের নাম দেওয়া হয়েছিল ‘ব্রেকফাস্ট ফর ডাইভারসিটি’। যেখানে ৬০০ মানুষের জন্য তৈরি হয়েছিল কন্টিনেন্টাল প্রাতঃরাশ। এক ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে চলে সেই খাদ্যানুষ্ঠান। ১০১টি দেশের মানুষ এক সঙ্গে সেখানে পেট ভরে খেয়েছিলেন দিন শুরুর খাবার। 

সংযুক্ত আমির শাহির ৫০ হাজারেরও বেশি শিখ ধর্মাবলম্বী মানুষের অন্নের ব্যবস্থা করে গুরু নানক দরবার গুরুদ্বারের ‘কমিউনিটি কিচেন’। একেবারেই বিনামূল্যে। 

গিনেস বুক-এর তরফ থেকে তালার ওমর জানিয়েছেন যে, তাঁরা এ হেন কর্মকাণ্ডে যুক্ত থাকতে পেরে খুবই খুশি। 

প্রসঙ্গত, এর আগে এই রেকর্ড ছিল ইতালির মিলান শহরের এক অনুষ্ঠানের। ২০১৫ সালে সেখানে ৫৫টি দেশের মানুষ এমনই কন্টিনেন্টাল ব্রেকফাস্ট করেন বলে জানা গিয়েছে।