গোয়েন স্টেফানির হয়তো গান গাওয়া হতোই না আর। পুরোদস্তুর অভিনেত্রীই হয়ে বসতে পারতেন! ‘মিস্টার অ্যান্ড মিসেস স্মিথ’এর প্রধান ভূমিকায় প্রায় সুযোগ পেয়ে গিয়েছিলেন যে! এতদিনে খবরটা জানিয়েছেন গোয়েন। বলেছেন, ‘‘মনে হয়েছিল, সুযোগটা পেয়েই গিয়েছি! অনেকগুলো অডিশন দিতে হয়েছিল। প্রতিযোগিতাটা ছিল আমার আর অ্যাঞ্জেলিনার মধ্যেই। ভেবেছিলাম, অভিনয়টা করতে পারব। অবশ্য গানবাজনা করার ইচ্ছেটা আরও বেশি ছিল।’’ শেষ পর্যন্ত অবশ্য অ্যাঞ্জেলিনা জোলিই করেন চরিত্রটা। ব্র্যাড পিটের সঙ্গে তাঁর প্রেমও নাকি সেই ছবির শ্যুটিং থেকেই!

সবচেয়ে দামি
ম্যাট ডেমন জানিয়েছেন, ‘গুড উইল হান্টিং’ তাঁর জীবনে যে প্রভাব ফেলেছিল, তেমনটা আর কোনও ছবি পারেনি। এই ছবির জন্য ‘বেস্ট অরিজিন্যাল স্ক্রিনপ্লে’র অস্কার পেয়েছিলেন ম্যাট এবং বেন অ্যাফ্লেক। ‘‘আমার আর বেনের জীবনে দারুণ প্রভাব ফেলেছিল ‘গুড উইল হান্টিং’। পাঁচ বছর লেগে গিয়েছিল ছবিটা বানিয়ে পরিবেশন করতে,’’ বলেছেন ম্যাট। ফের বেনের সঙ্গে স্ক্রিপ্ট লেখার ইচ্ছেও প্রকাশ করেছেন তিনি, ‘‘বেন আর আমি ৩৫ বছর ধরে বন্ধু। খুব ভালবাসি ওকে। ওর কাজও দারুণ পছন্দের।’’ একই প্রযোজনা সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা বলে অনেক প্রজেক্টেই একসঙ্গে কাজ করেন তাঁরা। কিন্তু স্ক্রিপ্ট লেখার জন্য কিছুতেই আর সময় বার করে উঠতে পারছেন না দু’জনে!

খুশি রিহানা
জ্যানেট লে’র জুতোয় পা গলাবেন রিহানা। টিভি সিরিজ ‘বেট্‌স মোটেল’এ অভিনয়ের জন্য ডাক পেয়েছেন যে! ‘সাইকো’ ছবিতে জ্যানেট লে যে ‘আইকনিক’ চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন, সেই চরিত্রে দেখা যাবে তাঁকে। ‘বেট্‌স মোটেল’এর এটা পঞ্চম এবং চূড়ান্ত সিজ্‌ন। অ্যালফ্রেড হিচককের ছবি ‘সাইকো’র প্রিক্যুয়েল এই সিরিজ। রিহানা নাকি বরাবরই ভক্ত ‘বেট্‌স মোটেল’এর। তাঁকে প্রস্তাবটা দেওয়ায় রাজি হতে দু’বার ভাবেননি। আপাতত আনন্দ আর ধরছে না তারকার।