কিছুদিন আগেই বিশ্বমঞ্চে ভারতের নাম উজ্জ্বল করেছেন হিমা দাস। ফিনল্যান্ডের তামপারোতে অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপে সোনা জিতেছেন অসম-কন্যা! সেই হিমা দাসের কোচ নিপন দাস-ই এবার অভিযুক্ত হলেন শারীরিক নিগ্রহ কাণ্ডে। এক অ্যাথলিট তাঁর বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ এনেছেন। যদিও নিপন সেই অভিযোগ সরাসরি অস্বীকার করেছেন।

এক সর্বভারতীয় সংবাদমমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, আন্তঃরাজ্য চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য সেই অভিযোগকারিণী অ্যাথলিটকে গুয়াহাটির ইন্দিরা গাঁধী অ্যাথলেটিক্স স্টেডিয়ামে প্রশিক্ষণ দেন নিপন দাস। তবে ২৬-২৯ জুন চারদিন ব্যাপী সেই টুর্নামেন্টে রাজ্য দলে খেলার সুযোগ পাননি ২০ বছরের সেই অ্যাথলিট। এরপরেই স্থানীয় থানায় অভিযোগ দায়ের করেন সেই অ্যাথলিট।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

সংবাদসংস্থাকে নিপন জানান, ‘‘এই মহিলা অ্যাথলিট ১০০ ও ২০০ মিটারে আমার থেকে প্রশিক্ষণ নিতেন। অসম দলে সুযোগ পাওয়ার জন্য ক্রমাগত আমাকে ধাওয়া করেছে। ওর থেকেও যোগ্য অ্যাথলিটরা থাকায় ওকে সুযোগ দিতে পারিনি। আন্তঃরাজ্য চ্যাম্পিয়নশিপে অসম দলে সুযোগ না পাওয়াতেই মনগড়া অভিযোগ করেছে।’’

হিমার সাফল্যের জন্য নিপন প্রশংসিত হয়েছিলেন সর্বত্র। জানা গিয়েছিল, হিমাকে অ্যাথলেটিক্স-এ নামার জন্য উৎসাহ দিয়েছিলেন নিপন-ই। বর্তমানে বিপাকে পড়া নিপন অবশ্য জানাচ্ছেন, ‘‘নিজের অভিযোগের স্বপক্ষে কোনও প্রমাণ দাখিল করতে পারেনি ও। অভিযোগে ও জানিয়েছে, ঘটনা ঘটে ১৮ মে। তবে ও অভিযোগ জানায় ২২ জুন। আমার সহকারী কোচ-সহ একাধিক অ্যাথলিটকে জিজ্ঞাসাবাদ চালানো হয়েছে। প্রত্যেকেই জানিয়েছে, এমনটা কিছু ঘটেনি।’’

এর পরে তিনি জানিয়েছেন, ‘‘পুলিশ এখনও আমাকে গ্রেফতার করেনি। এক বার কেবল থানায় নিয়ে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল। যদি আমি সত্যিই অপরাধী হয়ে থাকি, তা হলে শাস্তি দেওয়া হোক আমাকে। তবে আমি কোনও অপরাধ করিনি।’’