ভারতের সোনার মেয়ে। কয়েকদিন আগেই বিশ্বমঞ্চে ভারতের নাম উজ্জ্বল করেছেন তিনি। তাঁর ইংরেজি বলতে না পারার অক্ষমতা নিয়েও একপ্রস্থ বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। এবার সেই সোনার মেয়েই ‘কোটিপতি’! বহুজাতিক এক স্পোর্টস ম্যানেজমেন্ট ফার্মের সঙ্গে কয়েক কোটি টাকার চুক্তি করেছেন তিনি সম্প্রতি।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

প্রথম ভারতীয় অ্যাথলিট হিসেবে জুনিয়র বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপের ট্র্যাক ইভেন্টে সোনা জিতেছিলেন হিমা দাস। কিশোরীর সাফল্যে উচ্ছ্বসিত হয়েছিল গোটা দেশ। প্রচারের স্পটলাইটে তিনি নিজেও উদ্ভাসিত হয়েছিলেন।

এবার ‘ক্রোড়পতি’ কন্যা জানিয়ে দিলেন, ‘‘দেশের অন্যতম সেরা স্পোর্টস ম্যানেজমেন্ট ফার্মের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হতে পারায় আমি ভাগ্যবান। নিজের বানিজ্যিক বিষয়টি দেখার জন্য স্পোর্টস ম্যানেজমেন্টের খোঁজ করছিলাম। আর্থিক বিষয় নয়, শুধুমাত্র ট্রেনিং ও চ্যাম্পিয়নশিপে ফোকাস করতে চাইছিলাম।’’

গত সপ্তাহে দেশের এক তৈল উৎপাদনকারী সংস্থার পক্ষ থেকে হিমাকে আর্থিক পুরস্কার হিসেবে দেওয়া হয়েছে ২০ লক্ষ টাকার মতো। এর পরেই আরও সুখবর। তবে কত কোটি টাকায় চুক্তি হয়েছে, তার অঙ্ক জানা যায়নি। ২০১২ সালে কেরিয়ার শুরু করেছিলেন হিমা। জেলাস্তরে দারুন পারফর্ম করে প্রথমবার কোচের নজরে আসেন অসমের কন্যা।

বছর দু’য়েক আগে রাজ্যস্তরের ১০০ মিটার ইভেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়ে নিজের প্রতিভার সঠিক সুবিচার করেছিলেন। তবে প্রায় বিনা ট্রেনিংয়ে কোয়েম্বাটোরে আয়োজিত জুনিয়র অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছিলেন তিনি। কয়েক কোটি টাকার স্পনসরশিপ পাওয়ার পরে তাঁর ভবিষ্যৎ যে সুরক্ষিত, তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই।