সরকারি তরফে বছরভর লেগে থাকে নানা উদ্‌যাপন, অনুষ্ঠান। কখনও নবান্নে, কখনও অন্যত্রও। শুধু সরকার নয়, সরকারের নানা সহযোগী সংগঠনও সেসব পালন করে থাকে বিভিন্ন সময়ে। সোমবার সকালে কলকাতার ময়দানে দেখা গেল এরই উলটো ছবি। চূড়ান্ত অবহেলায় পালিত হল এই বিখ্যাত বাঙালির ১২৩তম জন্মদিন।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

ফুটবল কিংবদন্তি গোষ্ঠ পাল। ভূষিত হয়েছিলেন ‘চিনের প্রাচীর’ অভিধায়। শুধু খেলার মাঠে ইতিহাস তৈরি করা নয়, জীবন দর্শনেও তিনি ছিলেন এক স্বাধীনতা সংগ্রামী। এহেন মানুষটির জন্মদিবসে প্রকট হল বিভিন্ন সরকারি ক্রীড়া সংগঠনের ঔদাসীন্য।

সোমবার সকালে গোষ্ঠ পালের মূর্তির পাদদেশে আসেন তাঁর ছেলে নীরাংশু পাল। কিন্তু সেখানে পরিবারের সামান্য কিছু লোকজন ছাড়া আর কেউই হাজির ছিলেন না। বাবার অপমানের এই দৃশ্য দেখে মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন তিনি।

শুনুন গোষ্ঠ পালের ছেলের মন্তব্য
 

 

নীরাংশুবাবু এ-ও বলেন, প্রতি বছরই জন্মদিন উদ্‌যাপনে কোনও না কোনও সরকারি ক্রীড়া সংগঠনের উপস্থিতি থাকে। এ বছর তাঁদের দেখা মেলেনি। কেন গোষ্ঠ পালের মতো এক কিংবদন্তি ফুটবলার এমন বঞ্চনার শিকার হলেন, তা স্পষ্ট নয় তাঁর পরিবারের লোকজনের কাছে।