৩০০ মিলিয়ন টাকা বা ৩০ কোটি টাকা। এই বিপুল পরিমাণ অঙ্কের অর্থ নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলে ঝড় উঠেছে। কারণ, এই ৩০ কোটি টাকার বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে পাকিস্তানের নওশেরার আকোরা খাট্টাক মাদ্রাসাকে। এই সেই মাদ্রাসা যা তালিবান জঙ্গিদের আঁতুরঘর বলে পরিচিত। বিশ্বজুড়ে এই মাদ্রাসার ডাক নাম ‘ইউনিভার্সিটি অফ জিহাদ’। 

সবচেয়ে অবাক হতে হয় এই অর্থ যোগানদাতার নাম শুনলে। ইমরান খান। তাঁর দল তেহরিক-ই-ইনসাফ এই মুহূর্তে খাইবার পাখতুন প্রদেশের শাসক। সেই খাইবার পাখতুন প্রদেশের সরকার এই অর্থ যোগাচ্ছে ‘ইউনিভার্সিটি অফ জিহাদকে’। খাইবার পাখতুন সরকারের পক্ষে মন্ত্রী শাহ ফরমান জানিয়েছেন, অঞ্চলে যত ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আছে তাদের উন্নতিতে আরও অর্থ বরাদ্দ করা হবে। 

‘ইউনিভার্সিটি অফ জিহাদ’-এর প্রাক্তন ছাত্র ছিলেন তালিবান জঙ্গিদের প্রধান মোল্লা ওমর। এমনকী, আফগানিস্তানে হক্কানি নেটওয়ার্কের প্রতিষ্ঠাতা জঙ্গি জালাউদ্দিন হক্কানি থেকে ভারতীয় উপমহাদেশে আল-কায়দার নেতা আসিম ওমর এবং কিছুদিন আগে মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত তালিবান প্রধান মোল্লা আখতার মনসুর— এরা সকলেই এই ‘ইউনিভার্সিটি অফ জিহাদ’-এর প্রাক্তনী। 

১৯৪৭ সালে এই মাদ্রাসাটি যিনি স্থাপন করেছিলেন সেই মৌলানা সামিউল হক জামাত-উলেমায়ে ইসলাম নামে মৌলবাদী সংগঠনের প্রধান ছিলেন। পরে এই সংগঠনটি জঙ্গি কার্যকলাপে লিপ্ত হয়।