রবিবার ভারত-পাকিস্তান ম্যাচেই এজবাস্টনের গ্যালারিতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। যা নিয়ে বিতর্ক কম হয়নি। বিজয় মাল্য অবশ্য মেগা ম্যাচ দেখেই ক্ষান্ত হননি। সোমবার লন্ডনে বিরাট কোহলি ফাউন্ডেশনের চ্যারিটি অনুষ্ঠানেও হাজির হয়েছিলেন। কিন্তু সেখানে গিয়ে খুব একটা সুখকর অভিজ্ঞতা হল না ঋণখেলাপি এই শিল্পপতির।

একটি সর্বভারতীয় ইংরেজি দৈনিকের দাবি, সোমবার লন্ডনের ওই অনুষ্ঠানে বিজয় মাল্যকে দেখে যথেষ্টই অস্বস্তিতে পড়ে যান ভারতীয় ক্রিকেটাররা। বিরাট কোহলি ফাউন্ডেশনের ওই অনুষ্ঠানে মহেন্দ্র সিংহ ধোনি, যুবরাজ সিংহ-সহ গোটা ভারতীয় দল ছিল। শিখর ধবন, রোহিত শর্মারা সস্ত্রীক ওই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন। সচিন তেন্ডুলকরের মতো প্রাক্তন তারকাও অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন। কিন্তু ৯০০০ কোটি টাকা ঋণ ফাঁকি দেওয়ায় অভিযুক্ত বিজয় মাল্য যে সেখানে হাজির হবেন, তা বোধ হয় ভারতীয় ক্রিকেটাররা আন্দাজ করতে পারেননি। তাই বিজয় মাল্য অনু্ষ্ঠানে হাজির হওয়ার পর পরই ভারতীয় ক্রিকেটাররা দ্রুত অনুষ্ঠানস্থল ছাড়েন বলে দাবি করা হয়েছে। 

লন্ডনের সেই অনুষ্ঠানে ভারতীয় ক্রিকেটাররা। ছবি সৌজন্যে- বিসিসিআই

যে বিজয় মাল্যকে দেশের পুলিশ ‘খুঁজে’ বেড়াচ্ছে, কোটি কোটি টাকা ঋণ ফাঁকি দেওয়া সেই শিল্পপতিকে ভারত-পাক ম্যাচের গ্যালারিতে বসে থাকতে দেখেই বিতর্কের ঝড় উঠেছিল। এর পরে তাঁদের সঙ্গে মাল্যর ছবি উঠলে তা নিয়ে নতুন করে বিতর্ক সৃষ্টি হবে, তা ভালই জানতেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা। তার উপরে সরাসরি বিজয় মাল্যকে অনুষ্ঠানস্থল ছেড়ে চলে যাওয়ার কথাও বলা সম্ভব ছিল না। ফলে মাল্যর উপস্থিতিতে বেজায় অস্বস্তিতে পড়েন ধোনি, যুবরাজরা। নতুন করে কোনও অস্বস্তি এড়াতেই ভারতীয় দল দ্রুত অনুষ্ঠান স্থল ছাড়ে বলেই বিসিসিআই-এর একটি সূত্রকে উদ্ধৃত করে ওই ইংরেজি দৈনিকের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে যাওয়ার আগে ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করা যুবির ছবি। 

কিন্তু বিজয় মাল্য বিরাট কোহলিদের অনুষ্ঠানে এলেন কীভাবে? বিসিসিআই-এর এক শীর্ষকর্তাকে উদ্ধৃত করে দাবি করা হয়েছে, বিরাট কোহলি ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে বিজয় মাল্যকে ওই অনুষ্ঠানে আসার নিমন্ত্রণ জানানো হয়নি। সম্ভবত অন্য কেউ ডিনার টেবিল বুক করে অতিথি হিসেবে বিজয় মাল্যকে আসতে বলেছিলেন। এক্ষেত্রে উদ্যোক্তাদের কিছু করণীয় থাকে না।

এক সময়ে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর দলের মালিক ছিলেন মাল্য। সেই দলের অধিনায়ক ছিলেন বিরাট কোহলি। যদিও সোমবারের অনুষ্ঠানে প্রাক্তন আইপিএল মালিকের ধারপাশ দিয়েও ঘেঁষেননি কোহলি বা তাঁর দলের অন্যান্য সদস্যরা।