‘সংকটমোচন’ হল গৃহযুদ্ধে বিধ্বস্ত দক্ষিণ সুদানে আটকে পড়া ভারতীয়দের একাংশের। রাত পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুসারে, কেন্দ্রের পাঠানো সেনা-বিমানে আজ অন্তত ১৪৩ জন ভারতীয় নয়াদিল্লি ফিরছেন।

ওই ভারতীয়দের উদ্ধারের জন্য কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ টুইটারে গতকালই ‘অপারেশন সংকটমোচনে’র ঘোষণা করেছিলেন। সেই মতো আজ ভোরেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ভি কে সিংহের নেতৃত্বে দক্ষিণ সুদানের রাজধানী জুবার উদ্দেশে রওনা হয় বায়ুসেনার দু’টি সি-১৭ গ্লোবমাস্টার বিমান। জুবায় দক্ষিণ সুদানের বিদেশমন্ত্রী ডেং আলর কুলের সঙ্গে দেখা করেন ভি কে। তার পরেই শুরু হয় উদ্ধার অভিযান।

স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আজ বলেন, ‘‘ভারতীয়দের ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার সব রকম চেষ্টা করব।’’ যদিও উদ্ধার অভিযান প্রথমে বাধার মুখে পড়েছিল। কারণ, বেশ কয়েকজন ভারতীয় প্রথমে ফিরতে রাজি হননি। দক্ষিণ সুদানে কমপক্ষে ৬০০ জন ভারতীয় রয়েছেন। এঁদের মধ্যে ৪৫০ জনই থাকেন জুবায়। বিদেশমন্ত্রক সূত্রের খবর, মাত্র ৩০০ জন উদ্ধারের জন্য নাম নথিভুক্ত করেছিলেন।

উদ্ধার অভিযানের ব্যাপারে আজ সকাল থেকে পরপর টুইট করেন সুষমা। একটিতে তিনি লিখেছেন, ‘দু’টি বিমান পাঠিয়েছি। দক্ষিণে বসবাসকারী ভারতীয়দের কাছে অনুরোধ, পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার আগে ফিরে আসুন। পরিস্থিতি আরও খারাপ হলে আপনাদের আর উদ্ধার করতে পারব না’।

বিকেল ৫টা নাগাদ বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র বিকাশ স্বরূপ টুইট করে জানান, প্রথম সি-১৭ বিমান জুবা থেকে নয়াদিল্লির উদ্দেশে রওনা হয়ে গিয়েছে। ওই বিমানে ১৪৩ জন ভারতীয় রয়েছেন। তাঁদের মধ্যে ১০ জন মহিলা এবং তিনজন সদ্যোজাত। দ্বিতীয় বিমানে কতজনকে আনা হচ্ছে, সে ব্যাপারে রাত পর্যন্ত কিছু জানাননি বিকাশ। মোট কতজনকে উদ্ধার করা হয়েছে, জানা যায়নি তা-ও। অভিযানের প্রসঙ্গে ভি কে টুইট করেন, ‘দলগতভাবে কাজ করলে সাফল্য আসবেই’। বিমানের ভিতরের একাধিক ভিডিও পোস্ট করেন তিনি। রাতে সুষমার টুইট, ‘দুটি বিমানই সংঘর্ষ-এলাকা থেকে বেরিয়ে এসেছে। প্রথম বিমানটি আগামীকাল ভোর ৫টা নাগাদ তিরুঅনন্তপুরম পৌঁছবে। সেখান থেকে ১০টা নাগাদ সেটি নয়াদিল্লি পৌঁছবে’।

অভিনেতা অক্ষয় কুমার ভারতীয়দের উদ্ধারে‌র ব্যাপারে গত পরশু সুষমাকে টুইট করেছিলেন। পাল্টা টুইটে তাঁকে আশ্বস্ত করেন সুষমা। এর পরেই টুইটারে ভাইরাল হয়, অক্ষয়ই প্রথম কেন্দ্রকে অনুরোধ করেছিলেন। যার জবাবে সুষমা আজ লিখেছেন, ‘এটি ভুল খবর। গত ১১ জুলাইয়ের আগেই উদ্ধারের পরিকল্পনা এবং ভারতীয়দের নথিভুক্তিকরণ হয়ে গিয়েছিল’। প্রসঙ্গত, ১৯৯০ সালে কুয়েত থেকে ভারতীয়দের উদ্ধারের ঘটনা ঘিরে ‘এয়ারলিফ‌্ট’ নামে একটি ছবির নায়ক অক্ষয়ই। মুক্তির পরে সেই ছবিকে নিজেদের প্রচারের মাধ্যম হিসাবে ব্যবহার করেছিল বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকার। এছাড়া, একটি ভিডিও বানিয়ে তাতে ২০১৫ সালে ইয়েমেন থেকে ভারতীয়দের ‘এয়ারলিফ‌্ট’ করার ছবি এবং অক্ষয়ের ছবির দৃশ্য মিশিয়ে দেওয়া হয়েছিল।

২০১৩ সাল থেকেই উত্তপ্ত দক্ষিণ সুদান। প্রেসিডেন্ট সালভা কীরের সেনাবাহিনী এবং প্রাক্তন ভাইস প্রেসিডেন্ট রিক মাচারের অনুগতদের মধ্যে সংঘর্ষে গত কয়েক বছরে কয়েকশো মানুষ নিহত হয়েছেন। গত সোমবার থেকে সংঘর্ষবিরতি চলছে। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে দক্ষিণ সুদান থেকে ভারতীয়দের দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনতে তৎপর নয়াদিল্লি।

Copyright © 2018 Ebela.in - All rights reserved