সাত পুরসভার নির্বাচনের দলের একচেটিয়া দাপটের দিনেই দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের দাপটও হাড়ে হাড়ে টের পেলেন তৃণমূল নেতৃত্ব। যার জেরে হাত ভাঙল দলীয় বিধায়কেরই।

তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব রাজ্য নতুন কিছু নয়। এবার দলীয় কোন্দলের ঠেলায় লাঠি দিয়ে পিটিয়ে দলের বিধায়কেরই হাত ভেঙ্গে দিল তাঁর দলের বিরোধী গোষ্ঠীর লোকজন। এমনই অভিযোগ উঠেছে বাঁকুড়ার ইন্দাসে। আক্রান্ত বিধায়কের নাম গুরুপদ মেটে। তিনি ইন্দাসেরই তৃণমূল বিধায়ক।

বুধবার বাঁকুড়ার ইন্দাস হাইস্কুলে তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় কর্মিসভা ছিল। এই সভায় ইন্দাস ও পাত্রসায়রের ব্লকের কর্মীদের পাশাপাশি দলের ব্লক নেতৃত্ব ও বিধায়কেরও উপস্থিত থাকার কথা। এলাকায় দলের রাশ কার হাতে থাকবে তা নিয়ে স্থানীয় তৃণমূল বিধায়ক গুরুপদ মেটের সঙ্গে দীর্ঘদিনের বিবাদ দলের ব্লক সভাপতি রবিউল হোসেনের। আর সেই বিবাদের জেরেই এ দিন দলীয় সভায় ঢোকার মুখেই আক্রান্ত হন বিধায়ক গুরুপদ মেটে ও তাঁর অনুগামীরা। আক্রান্ত বিধায়কের দাবি, সভায় প্রবেশের মুখেই পরিকল্পিত ভাবে তাঁদের উপর হামলা চালায় ব্লক সভাপতি গোষ্ঠীর অনুগামীরা। লাঠি রড দিয়ে যথেচ্ছ মারধর করা হয়। লাঠির আঘাতে ডান হাত ভেঙ্গে যায় বিধায়কের। পরে দলীয় কর্মীরা তাঁকে উদ্ধার করে বিষ্ণুপুর জেলা হাসপাতালে নিয়ে যান।

কী বলছেন আক্রান্ত বিধায়ক, দেখুন ভিডিও ১

অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন দলের ব্লক সভাপতি রবিউল হোসেন। তাঁর বক্তব্য ,দলীয় সভায় অস্বচ্ছ ভাবমুর্তির লোকজন ও সমাজবিরোধীদের নিয়ে আসা নিষেধ ছিল। তা সত্ত্বেও বিধায়ক একাধিক খুনের ঘটনায় অভিযুক্ত ও সমাজবিরোধীদের সঙ্গে নিয়ে তাদের নামে জয়ধ্বনি দিতে দিতে সভাস্থলে আসছিলেন। এই ঘটনায় বাজারের ব্যবসায়ী ও স্থানীয় মানুষ আতঙ্কিত হয়ে ছোটাছুটি শুরু করেন। এর পর কি হয়েছে জানা নেই বলেই তাঁর দাবি।

কী বলছেন বিরোধী পক্ষ, দেখুন ভিডিও ২

দেখুন ভিডিও ৩